Sharing is caring!

শিবগঞ্জ প্রতিনিধি \ অবশেষে বৃহষ্পতিবার দিবাগত রাত দেড় টার দিকে আপত্তিকর অবস্থায় বৃহষ্পতিবার সকালে আটক সেই শিক্ষা কর্মকর্তা ইউসুফ ভঁ‚ইয়ার বিয়ে সম্পন্ন হলো। জমি, বাড়ি দেনমোহরসহ মোটা অর্থের বিনিময়ে অভিযুক্ত কর্মকর্তার প্রথম স্ত্রী সিরাজগঞ্জ থেকে শিবগঞ্জ থানায় এসে বিয়ের সম্মতি জানালে থানা কর্তপক্ষ উভয় পক্ষের কাছে মুচলেকা নিয়ে উভয় পক্ষের পরিবারের কাছে বর ও কনেকে বুঝিয়ে দেয়। শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ রমজান আলী অভিযুক্ত কথিত স্ত্রী রহিমা বেগমকে তার ভাই মাসুদ রানার হাতে এবং শিক্ষা কর্মকর্তাকে তার স্ত্রীর সামনে মেয়ের জামাই শাহ আলমের হাতে তুলে দেয়। পরে রাত দেড় টার দিকে স্থানীয়ভাবে কাজি ডেকে শিবগঞ্জ পৌর এলাকায় একটি বাড়ি, কিছু জমি এবং ৫ লক্ষ ৫ হাজার টাকা দেনমোহরে শিবগঞ্জ থানায় বিয়ে সম্পন্ন হয়। শিবগঞ্জ পৌরসভার ১, ২ এবং ৩ নং ওর্য়াডের কাজি মাজদার আলী জানান, বৃহষ্পতিবার রাত দেড় টার দিকে ইউসুভ আলী ভুয়াঁর মেয়ের জামাই শাহআলমের এবং রহিমা বেগমের ভাই মাসুদ রানার উপস্থিতিতে শিবগঞ্জ বাজারে ইউসূভ আলী ভ‚য়ার দ্বিতীয় বিয়ে শিবগঞ্জ থানায় সম্পর্ন্ন হয়। এর আগে শিক্ষা কর্মকর্তার প্রথম স্ত্রী জিনাত সুলতানার কাছে দ্বিতীয় বিয়ের সম্মতি আছে কিনা জানতে চাওয়ার পর তিনি সম্মতি দিলে ২ বিঘা ফসলি জমি, ৫ ভরি গয়না, ২/৩ কাঠা শিবগঞ্জ শহরের কোন এক জায়গায় জমি কিনে সেখানে বাড়ি নির্মানের ব্যবস্থা এবং ৫ লাখ ৫ হাজার টাকা দেনমোহর ধার্য করা হলে উভয় পক্ষের সম্মতিতে বিয়ে সম্পর্ন্ন হয়। এ সময় শিবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ শীর্য পর্যায়ের কয়েকজন নেতা উপস্থিত থেকে বিষয়টি দেকভাল করেন। উল্লেখ্য, বুধবার দিবাগত রাতে শিবগঞ্জ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ইউসুফ আলী ভ‚য়া ও হাউসনগর কেজি স্কুল পরিচালক রহিমা বেগম শিবগঞ্জ পৌর এলাকার একটি বাড়িতে ¯^ামী স্ত্রী পরিচয়ে অবস্থান কালে এলাকাবাসীর হাতে অবরুদ্ধ থাকার পর আপত্তিকর অবস্থায় এলাকাবাসীর সহায়তায় শিবগঞ্জ থানা পুলিশ বৃহষ্পতিবার সকালে থানায় নিয়ে যায় এবং রাত ১টার দিকে তাদের পরিবারের জিম্মায় মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *