Sharing is caring!

অসময়ে বৃষ্টিতে চাঁপাইনবাবগঞ্জে জনদূর্ভোগ :

বাড়ছে শীতের তীব্রতা

♦ স্টাফ রিপোর্টার ও রিপন আলি রকি 

অসময়ে ঘুর্ণিঝড়ের প্রভাবে সারাদেশের সাথে সাথে অসময়ে মাঝাড়ী ও গুড়ি গুড়ি বৃষ্টিতে জনদূর্ভোগ সৃষ্টি হয়েছে। শীত সহনীয় থাকলেও ঘূর্ণিঝড় ফিথাই এর প্রভাবে বৃষ্টির কারণে এর তীব্রতা বাড়ছে। এই বৃষ্টিতে বেকায়দায় পড়েছে কৃষকসহ সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষ এবং ছিন্নমুল মানুষরা। এছাড়া ক্ষতির মুখে পড়েছে নির্বাচনের প্রার্থীরা। বৃষ্টিতে ভোটের প্রচারণার জন্য বিভিন্ন স্থানে টাঙ্গানো কাগজের পোস্টারগুলো ভিজে নষ্ট হয়ে খসে খসে পড়ে যাচ্ছে। এমনিতেই নির্বাচনী প্রচারে পোস্টারের জন্য মোটা অংকের খরচ হয়েছে, আবারও প্রাকৃতিক দূর্যোগের কারণে আবারও নির্বাচনী খরচ বেড়ে যাওয়ায় আর্থিকভাবে ক্ষতির মুখে পড়েছেন বিভিন্ন দলের প্রার্থীরা। সোমবার সকাল থেকে সূর্যের দেখা না মেলায় ঠান্ডা বাড়ছিলো, এরমধ্যে হঠাৎ করেই সোমবার বিকেল থেকে নামে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি। রাতে এর তীব্রতা বাড়ে। মুসলধারে বৃষ্টি হতে থাকে রাতভর। অবিরাম ঝরতে থাকা বৃষ্টি সকালে আবারও অব্যহত থাকে। মঙ্গলবার সারাদিনই বৃষ্টি পড়তে থাকে। মাঝে মাঝে বইছে ঠান্ডা বাতাসও। ফলে জেঁকে বসেছে শীত চাঁপাইনবাবগঞ্জের প্রায় সবখানে। নভেম্বরের শুরুতে শীতের আমেজ আসলেও সে হারে শীত সেভাবে অনুভূত হয়নি। তবে পৌষের শুরুতেই শীতের তীব্রতা বেড়েছে। তাপমাত্রা খুব একটা না কমলেও আকাশে মেঘ থাকায় বাতাসের সাথে সাথে কনকনে ঠান্ডা পড়ছে ভোরে ও রাতে। রাজশাহী আবহাওয়া অফিস সুত্রে জানা গেছে, ঘূর্ণিঝড় পিথাই এর প্রভাবে আকাশে মেঘ থাকায় শীত বেশি মনে হচ্ছে। আগামী ২০ ডিসেম্বর পর্যন্ত এই বৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। সোমবার শীত বেশি অনুভূত হলেও তাপমাত্রা কমেনি। আকাশে মেঘ থাকাই মনে হচ্ছে শীত পড়ছে। প্রকৃত কারণ হচ্ছে মেঘলা আকাশ। মেঘ কাটলে রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জসহ উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন জেলার ওপর দিয়ে ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে এবং বেশি শীত অনুভূত হবে। জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে ২টি মাঝারি থেকে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাওয়ার আশংকা রয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *