Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার \ চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ সদর আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল ওদুদ বলেছেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার প্রতিটা পাড়া-মহল্লার উন্নয়ন করে আগামী এক বছরের মধ্যে এই পৌরসভাকে একটি মডেল পৌরসভা হিসেবে গড়ে তোলা হবে। তিনি আরো বলেন, পৌরসভা সার্বিক সুবিধা ও মডেল পৌরসভা করতে হলে পৌরবাসীদের সহযোগিতা প্রয়োজন। আমাদের সকলকে সচেতন হয়ে পৌর ট্যাক্স সময়মত পরিশোধ করতে হবে। শনিবার দুপুরে স্থানীয় সরকার প্রকৌশলী অধিদপ্তরের তৃতীয় নগর পরিচালন ও অবকাঠামো উন্নতিকরণ (সেক্টর) প্রকল্প (ইউজিআইআইপি-৩) আওতায় প্যাকেজ নং-৩ এর অধীনে ফকিরপাড়া মহানন্দা আবাসিক এলাকায় গোরস্থান হতে ডলির বাড়ী পর্যন্ত সিসি দ্বারা উন্নয়ন (চেইনেজ ০-১৮০ মিটার), ফকিরপাড়া মহানন্দা আবাসিক এলাকায় ৪টি সংযোগ রাস্তা সিসি দ্বারা উন্নয়ন কাজ (চেইনেজ ০-৫০ করে মোট ২০০ মি.) ও ফকিরপাড়া মহানন্দা আবাসিক এলাকায় গোরস্থান হতে ডলির বাড়ী ও ৪টি সংযোগ রাস্তার পার্শ্বে আরসিসি ড্রেন (চেইনেজ০-৩৮০ মি.) কাজের ভিত্তিপ্রস্থর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি আরো বলেন, ইতোপূর্বে পৌর এলাকার প্রায় ১৫ কোটি টাকার উন্নয়নমূলক কাজ সম্পন্ন হয়েছে। বর্তমানে ২৬ কোটি টাকার উন্নয়নমূলক কাজ চলমান রয়েছে। এসব কাজ মন্ত্রণালয়ে অনুমোদন নিতে অনেক কিছু আমাদের অন্যর কাছে সহযোগিতা নিতে হয়েছে এই পৌরবাসীর জন্য। পৌরবাসীর উদ্দেশ্যে তিনি আরো বলেন, আমরা যদি একটু সচেতন হই, তাহলে আমরা এই পৌরসভাকে সহযোগিতা করতে পারবো। আমাদের নিজেদের পানির ট্যাংকগুলো যদি একটু পরিস্কার করে ব্যবহার করি, তাহলে আমরা এই পৌরসভার বিশুদ্ধ পানি খেতে পারবো। আর বাজার থেকে বোতলের মিনারেল পানি কেনে খেতে হবে না। এতে পৌরসভার আয়ও বাড়বে। এমপি ওদুদ বলেন, আপনাদের সহযোগিতা পেলে আমরা আগামীতে ৪০ কোটি টাকার কাজ পেতে পারি বলে আশা করছি। এছাড়া মেয়র মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম বলেন, পৌরবাসী উন্নয়নের জন্য এমপি মহোদয়সহ আমরা পৌর এলাকার উন্নয়ন কাজ করছি। আপনাদের বার বার বলতে হয়, পৌর ট্যাক্স পরিশোধের জন্য। আপনাদের সহযোগিতার আমাদের অতি জরুরী। তাই পৌর কর্তৃপক্ষ বর্তমানে ট্যাক্স আদায়ের জন্য আপনাদের আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১০ শতাংশ ছাড় দেয়ার ব্যবস্থা করেছে। এছাড়া  বকেয়া ট্যাক্স পুরো পরিশোধ করতে হবে। এতে কোন ছাড় দেয়া হবে না। তিনি আরো বলেন, ইতোপূর্বে পৌরসভার ৪ কোটি টাকা বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করেছি। পাশাপাশি পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারিদের বেতনও পরিশোধ করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, আজকেই এই রাস্তা ও ড্রেনেজ উন্নয়নমূলক কাজের উদ্বোধন করা হলো। যাদের পানির সংযোগের প্রয়োজন আপনারা কাজ চলাকালে সংযোগ করে নিবেন। কাজ সম্পন্ন হওয়ার পর পৌরসভা রাস্তা কাটতে দেয়া হবেনা। তাই আপাদের আগেই বলে দেয়া হলো। এছাড়া আরো বক্তব্য রাখেন নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ সাদিকুল ইসলাম, সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর মোসাঃ আনোয়ারা বেগম পলি, কাউন্সিলর জিয়াউর রহমান আরমান, এলাকাবাসীর পক্ষে বক্তব্য রাখেন আলহাজ্ব মোহর আলী খাঁন। এসময় পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলরগণ ও বিভিন্নস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। এসব কাজে ব্যয় হবে ১ কোটি ৫০ লক্ষ ৪৮ হাজার ২’শ ৩৫ টাকা এবং আগামী ২০১৮ সালের ৩০ জুনের মধ্যে প্রকল্পের কাজগুলো শেষ হবে। এদিকে শনিবার সকালে পৌর এলাকার কয়েকটি স্থানে রাস্তা ও ড্রেনেজ উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করেন অতিথিগণ।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *