Sharing is caring!

আগের আমদানী করা পেঁয়াজও আসছেনা

সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে

♦ স্টাফ রিপোর্টার

আগের আমদানী করা পেঁয়াজও আসছেনা দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম স্থলবন্দর সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে। মঙ্গলবার শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজ নিয়ে ট্রাক না প্রবেশ করে উল্টো ভারতের দিকে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে পেঁয়াজ ভর্তি ট্রাকগুলো। গত ১৯ সেপ্টেম্বর সোনামসজিদ বন্দর দিয়ে ৮ ট্রাক পেঁয়াজ দিয়েই পেঁয়াজ রপ্তানী বন্ধ করে দেয় মহদীপুর কাষ্টম্স কতৃপর্ক্ষ। আটকে থাকা প্রায় ৪ শতাধিক পেঁয়াজ ভর্তি ট্রাকের মধ্যে ৩’শ ট্রাক শনিবার বিকেলে এবং বাকী ১’শ ট্রাকও মহদীপুর বন্দর থেকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। একাধিক সূত্রের বরাত দিয়ে সোনামসজিদ স্থলবন্দর সিএন্ডএফ এজেন্ট আলহাজ¦ আব্দুল আওয়াল জানান, ১৪ সেপ্টেম্বরের আগে এলসি করা পেঁয়াজ সোনামসজিদ বন্দর দিয়ে কি পরিমান ছিল তা নিশ্চিত না হওয়া গেলেও টেন্ডারকৃত পেঁয়াজের পরিমান আরও বেশি। বন্দরে প্রবেশের অপেক্ষায় থাকা সেগুলো পেঁয়াজ ভারত না দিয়েই ফিরিয়ে নিচ্ছে। তিনি আরও জানান, মহদীপুর বন্দর হাতেগোনা কয়েকটি ট্রাকে থাকা পেঁয়াজ নষ্ট হবার ভয়ে স্থানীয় আড়ৎগুলোতে খালাস করা হলেও বাকী আটকে পড়া সব পেঁয়াজ বন্দর থেকে সরিয়ে ফেলেছে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ। এতে করে এ বন্দর দিয়ে আর বাংলাদেশে পেঁয়াজ প্রবেশের সম্ভবনা নেই। এদিকে, ভারত থেকে আসা ২’শ ১৩ মে:টন পেঁয়াজের এক তৃিতয়াংশই পঁচা হওয়ায় পানির দরে অধিকাংশ পেঁয়াজ বিক্রি করতে দেখা গেছে ব্যবসায়ীদের। আবার বিপুল পরিমান পেঁয়াজ একদম পঁচে যাওয়ায় ফেলে দিতে হয়েছে। এতে করে চরম আর্থিক ক্ষতি হয়েছে ব্যবসায়ীদের। সোনামসজিদ বন্দর পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান পানামা পোর্ট লিংক লিমিটেডের ম্যানেজার মাঈনুল ইসলাম জানান, ভারত মহদীপুর দিয়ে লোক দেখানো ৮ টি ট্রাকে ২’শ ১৩ মে:টন পেঁয়াজ রপ্তানী করে বাকী পেঁয়াজ সরিয়ে নিয়েছে। আটকে পড়া আমদানীকৃত ৮ ট্রাক পেঁয়াজও সেদিনই বন্দরে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে খালাশ করে বন্দর থেকে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *