Sharing is caring!

DSC02437 গোদাগাড়ী সংবাদদাতা \ আদিবাসী জনগোষ্ঠির পৃথক সমতল ভূমি কমিশনের দাবিতে নাচোল থেকে শুরু হওয়া রবিবারের লংমার্চটি রাজশাহী জেলার গোদাগাড়ী উপজেলার রাজাবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ে রাত্রি যাপনের পর সোমবার সকালে ক্ষুদ্র জাতিসত্তার নারী-পুরুষেরা দ্বিতীয় দিনের মত লংমার্চ শুরু করে। লংমার্চটি দীর্ঘ রাস্তা হেঁটে রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে গিয়ে বিভাগীয় কমিশনারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছে। এতে আদিবাসী নারী পরিষদ, আদিবাসী যুব পরিষদ, আদিবাসী ছাত্র পরিষদের সদস্যসহ চাঁপাইনবাবগঞ্জ, রাজশাহী ও নওগাঁর বিভিন্ন উপজেলার দূর-দূরান্তের আদিবাসী মানুষেরা অংশ নেন।  সোমবার সকালে রাজাবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে লংমার্চটি রাজাবাড়ী বাজারে পথসভা করে। পথসভায় বক্তব্য রাখন আদিবাসী নেতা সুভাষ চন্দ্র হেমব্রম, আদিবাসী যুব পরিষদের সভাপতি হরেন্দ্রনাথ DSC02447সিং, সাধারণ সম্পাদক নরেন পাহান, আদিবাসী ছাত্র পরিষদের নারী বিষয়ক সম্পাদক সুমিতা রবিদাস, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি হেমন্ত মাহাতো, বগুড়া জেলা শাখার সভাপতি সিফন রবিদাস প্রাণ কৃষ্ণ প্রমূখ। লংমার্চকে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা শাহ্ মোহাম্মদ, সমাজসেবক রুহুল আমীন, ওয়ার্কাস পার্টির নেতা রফিকুল ইসলাম প্রমূখ। বক্তারা বলেন, আদিবাসী মানুষদের মূল সমস্যাই হচ্ছে ভূমি। ভূমিকে কেন্দ্র করেই নির্যাতন, নিপীড়নের শিকার হয়ে এই গোদাগাড়ী থেকেই ক্ষুদ্র জাতিসত্তার অনেক মানুষ দেশান্তরিত হয়েছেন। তাঁরা এদেশেরই নাগরিক। এদেশ মুক্ত করতে তাঁরা স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেছে। এদেশে তাঁদের অসহায়ের মত বসবাস করতে হচ্ছে। আওয়ামীলীগ সরকার নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনী ইস্তেহারে সমতলের আদিবাসীদের জন্য আলাদা ভূমি কমিশন গঠনের অঙ্গীকার করেছিলো। মহজোট সরকার দুই মেয়াদে সাত বছর পার করলেও আদিবাসীদের ভূমি কমিশন গঠনের বিষয়ে কোন উদ্যোগ গ্রহণ করেনি। ফলে আদিবাসীরা চমর হতাশাগ্রস্থ। শেষে লংমার্চটি রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে গিয়ে বিভাগীয় কমিশনারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন আদিবাসী নেতারা। সেখানে বক্তব্য রাখেন ঐক্য ন্যাপের কেন্দ্রীয় সভাপতি পঙ্কজ ভট্টাচার্জসহ আদিবাসী নেতৃবৃন্দ।

pic 1

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *