Sharing is caring!

IMG_20160817_113420প্রেস বিজ্ঞপ্তি \ দেখতে দেখতে পার হলো আলফ্রেড সরেন হত্যা এবং বিচারহীনতায় ১৬ বছর! শহীদ আলফ্রেড সরেনের হত্যাকারীদের দ্রুত বিচার ও শাস্তির দাবিতে বুধবার দুপুরে রাজশাহী মহানগরীর সাহেব বাজার জিরো পয়েন্টে আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে মুখে কালো কাপড় বেঁধে প্রতিবাদী মানববন্ধন হয়েছে। আদিবাসী ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি বিভূতী ভূষণ মাহাতোর সভাপতিত্বে প্রতিবাদী মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন আদিবাসী ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি হেমন্ত মাহাতো, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও রাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক নকুল পাহান, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক সাবিত্রী হেমব্রম, দপ্তর সম্পাদক আপেল মুন্ডা, রাজশাহী কলেজ শাখার যুগ্ম-আহŸায়ক দুলাল মাহাতো, কেন্দ্রীয় সদস্য তরুন মুন্ডা প্রমূখ। সংহতি জানিয়ে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রাজশাহী জেলা সভাপতি কল্পনা রায়, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি রাজশাহী জেলার সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক, জাতীয় আদিবাসী পরিষদ রাজশাহী মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক আন্দ্রিয়াস বিশ্বাস, আদিবাসী যুব পরিষদ রাজশাহী জেলার যুগ্ম-আহŸায়ক উপেন রবিদাস, হুরেন মুর্মু প্রমূখ। বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি রাজশাহী জেলার সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক সংহতি জানিয়ে আলফ্রেড সরেন হত্যার দীর্ঘ ১৬ বছর অতিবাহিত হলেও বিচার না হওয়ার নিন্দা এবং দ্রুত হত্যাকারীদের বিচার ও শাস্তির দাবি করেন। বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রাজশাহী জেলা সভাপতি কল্পনা রায়ের দাবি অবিলম্বে আলফ্রেড সরেন হত্যার বিচার করতে হবে। ভূমিকে কেন্দ্র করে সারাদেশে আদিবাসী হত্যা, নারী ধর্ষণ, নির্যাতন, উচ্ছেদ বন্ধ করতে হবে। আদিবাসী ছাত্র পরিষদের সভাপতি বিভূতী ভূষণ মাহাতোর দাবি, সারাদেশে ঘটে যাওয়া আদিবাসী হত্যা, ধর্ষণ, নির্যাতন, হামলা, ভাংচুর ও উচ্ছেদের ঘটনায় রাষ্ট্রের বিচারহীনতার প্রতিবাদেই মুখে কালো কাপড় বেঁধে আমাদের এই কর্মসূচি। উল্লেখ্য, ২০০০ সালের ১৮ আগস্ট নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার ভীমপুর গ্রামের আদিবাসী পল্লীতে আলফ্রেড সরেনকে হত্যা করে ভূমিদস্যু হাতেম আলী ও সীতেশ চন্দ্র ভট্টাচার্য ওরফে নিতাই গং এর ভাড়াটে লাঠিয়াল বাহিনী সন্ত্রাসীরা। দীর্ঘ ১৬ বছর পূর্ণ হলেও আলফ্রেড সরেন হত্যার বিচার হয়নি। কর্মসুচীর বিষয়টি এক প্রেসেনোটে নিশ্চিত করেছেন আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) হেমন্ত মাহাতো।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *