Sharing is caring!

ভোলাহাট প্রতিনিধি \ মোমিনুল ইসলাম, জেলার ভোলাহাট উপজেলার ধরমপুর গ্রামের পক্ষাঘাত জনিত রোগে ভূক্তভোগী হতদরিদ্র রিয়াজুদ্দিন ও মোসাঃ ফাতেমা বেগমের ছেলে। সে ফার্মেসীতে কাজ করেও এবছর এইচ.এস.সি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে। সে উচ্চ শিক্ষিত হয়ে একজন আদর্শবাদ ডাক্তার হতে চায়। কিন্তু দারিদ্রতা তাঁর যেনো পিছু ছাড়তে চাইছে না। দরিদ্র পরিবারের এমন মেধাবী মোমিনুল ইসলাম এর পাশে বিত্তবান ও প্রভাভ শালীদের দাঁড়ানো প্রয়োজন বলে মনে করছেন এলাকাবাসি। জানা গেছে, এবছর ভোলাহাট উপজেলার ৫টি কলেজের পরীক্ষার্থীদের মধ্যে একজন মাত্র জিপিএ-৫ পায়। আর সেটি ছিনিয়ে নিয়েছে মোমিনুল ইসলাম। মোমিনুল ইসলাম উপজেলার মোহবুল্লাহ কলেজের ছাত্র। এলাকাবাসী আরও জানায়, মোমিনুলের বাবা অনেকদিন থেকে প্যারালাইসিস রোগে ভূগছে। পরিবারে তাঁরা চার ভাই-বোনের মধ্যে মোমিনুল দ্বিতীয়। তারা দিন আনে, দিন খায়। বাবা অসুস্থ্য হওয়ায় অনেকটা সংসার চালাতে হয়ে মোমিনুলকে। তারপরও সে নিজের ভবিষতের কথা ভেবে শত কষ্ট হওয়ার সত্যেও লেখা-পড়া ছাড়েনি। দরিদ্র পরিবারে জন্মগ্রহণ করেও এমন প্রতিভা ছেলে ফার্মেসীতে কাজ করেও এবছরের এইচএসসিতে ছিনিয়ে নিয়েছে ভোলাহাট উপজেলার একমাত্র স্থান। এমন প্রতিভা ও উদ্যোমী ছেলের পাশে দাঁড়িয়ে সহযোগিতা করার জন্য সকল বিত্তবান ও প্রভাবশালীদের প্রতি আহŸান জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *