Sharing is caring!

এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরনী

♦ স্টাফ রিপোর্টার

এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ এর বার্ষিক বোনভোজন, ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠান হয়েছে। শুক্রবার সকাল থেকে সদর উপজেলার ঝিলিম ইউনিয়নের জামতলা এলাকায় এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবিএইউবি) এর নিজস্ব ক্যাম্পাসে দিনব্যাপী চলা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ এর বোর্ড অব ট্রাস্টিজ এর সদস্য ও এক্সিম বাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং প্রধান নির্বাহী ড. মো. হায়দার আলী মিয়া। সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. এবিএম রাশেদুল হাসান। বিশেষ অতিথি ছিলেন রাজশাহী বিভাগের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার ড. মো. আব্দুল মান্নান ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত ট্রেজারার ড. মোঃ শামীমুল হাসান। সকালে পবিত্র কোরআন তেলওয়াত এর মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয় এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান শিক্ষার্থীরা নবাগত শিক্ষার্থীদেরকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেয়। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন অনুষ্ঠানের উদযাপন কমিটির আহব্বায়ক এবং কৃষি অর্থনীতি ও গ্রামীণ উন্নয়ন অনুষদের প্রধান ড. আশরাফুল আরিফ। উপস্থিত ছিলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম, হার্ট বিশেষজ্ঞ ডা. উমর ফারুক, বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ড. মোঃ সোহেল আল বেরুনী, ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের প্রধান ড. মোস্তফা মাহমুদ হাসান, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোঃ শাহরিয়ার কবির, প্রক্টর ও কৃষি অর্থনীতি ও গ্রামীণ উন্নয়ন বিভাগের প্রধান ড. মো আশরাফুল আরিফ, সিনিয়র প্রভাষক ড. মোঃ সাহেব আলী প্রামানিক, প্রভাষক উদ্দানতত্ত¡ বিভাগ মোঃ মুজিবুর রহমান খানসহ সকল শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারি, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। পরে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়। শেষে বিভিন্ন ক্রীড়া প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন অতিথিগণ। প্রধান অতিথি বলেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী, যিনি না থাকলে আজকের এই সোনার বাংলা হতো না, সেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-কে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন। তিনি বলেন নবীন শিক্ষার্থীরাই একদিন দেশের উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে। প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে দেশপ্রেমের চেতনায় উদ্ধুদ্ধ হয়ে নৈতিকতা সম্পন্ন ভালো মানুষ হওয়ার আহবান জানান। শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ায় মনোনিবেশ করে সৎ নাগরিক হিসেবে দেশের সেবায় নিজেদেরকে গড়ে তোলার আহব্বান জনান। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক উন্নয়নে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলাবাসীর সহযোগিতা কামনা করেন। পরিশেষে আমন্ত্রিত বিভিন্ন কলেজের অধ্যক্ষ, স্কুলের প্রধান শিক্ষক, প্রিন্ট মিডিয়াকর্মী, সাংবাদিকবৃন্দ এবং সূধীজনকে ধন্যবাদ জানান। পরে অতিথিগণ বিশ্ববিদ্যালয়ের “জার্মপ্লাজম সেন্টার” এর শুভ উদ্বোধন করেন। সেই সাথে জমকালো আয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হয় বার্ষিক বনভোজন ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পরিচালনা ও অংশগ্রহনে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *