Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার \ সমাজ সেবায় অনন্য ভূমিকা রাখায় মাদার তেরেসা পদক ২০১৭ লাভ করেছেন জেলার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক টি ইসলাম গ্রæপের চেয়ারম্যান মোঃ তরিকুল ইসলাম (টি ইসলাম)। গত বুধবার (১০মে) সন্ধ্যায় রাজধানী ঢাকার পল্টনে মুক্তি ভবনের মৈত্রী মিলনায়তনে আয়োজিত গুণিজন সম্মাননা অনুষ্ঠানে তাঁকে এ পদক দেয়া হয়। জার্নালিস্ট সোসাইটি ফর হিউম্যান রাইটস ও বিশ্ব মানবাধিকার ফাউণ্ডেশনের যৌথ উদ্যোগে মহিয়সী নারী মাদার তেরেসার কর্মময় জীবন শীর্ষক আলোচনা সভা ও গুণিজন সম্মাননা ২০১৭ অনুষ্ঠিত হয়। জার্নালিস্ট সোসাইটি ফর হিউম্যান রাইটস এর চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট মো. মনির হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের বিচারপতি সিকদার মকবুল হক। সভায় প্রধান আলোচক ছিলেন বিচারপতি আব্দুস সালাম মামুন। বক্তৃতা করেন বক্তব্য রাখেন একুশে পদকপ্রাপ্ত ভাষা সৈনিক লায়ন শামসুল হুদা, শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ, লায়ন মো. গণি মিয়া বাবুলসহ অন্যরা। আলোচনা শেষে সমাজ সেবক টি ইসলামের হাতে মাদার তেরেসা পদক ও সনদপত্র তুলে দেন অতিথিগণ। সমাজ সেবক মোঃ তরিকুল ইসলাম (টি ইসলাম) ১৯৬১ সালের ২৭ডিসেম্বর চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার নামোশংকরবাটীর একটি সাধারণ পরিবারে জন্মগ্রহন করেন। পিতা মৃত তোফাজ্জল হোসেনের দ্বিতীয় সন্তান মো: তরিকুল ইসলাম ওরফে টি ইসলাম। বি.কম উত্তীর্ণ হওয়ার পর জুট মিলে চাকুরী পান তিনি। কিন্তু আগে থেকেই ব্যবসায়ীক চিন্তা ভাবনা থাকায় চাকুরী না করে ব্যবসার সাথে যুক্ত হন। দীর্ঘ ৩৫ বছর কঠোর পরিশ্রম, একাগ্রতা ও একনিষ্ঠতার সাথে কাজ করে গড়ে তোলেন টি ইসলাম গ্রæপ। টি ইসলাম গ্রæপের নিয়ন্ত্রনাধীন কোম্পানী গুলো হলো-মেসার্স মিনার অটোমেটিক রাইস মিল, মেসার্স টি ইসলাম এগ্রো ইণ্ডাষ্ট্রিজ, মেসার্স রাজ অটোমেটিক রাইস মিল, মেসার্স টি ইসলাম সুপার রাইস মিল, মেসার্স এম আর রাইস এণ্ড ফ্লাওয়ার মিল, মেসার্স তামিম ফিস এণ্ড ডেইরী ফার্ম, মেসার্স সোনালী ডাল মিল, মেসার্স টি ইসলাম প্রোপ্রার্টিজ, মেসার্স মিনার কালার স্টার প্লান্ট ইত্যাদী। সাধারণ ব্যবসায়ী থেকে তিনি প্রতিষ্ঠিত একজন ব্যবসায়ী। দীর্ঘদিন থেকেই তিনি সাধারণ ও দরিদ্র মানুষের বিপদে পাশে দাঁড়িয়ে সেবা করে আসছেন। তিনি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাথে সম্পৃক্ত হয়ে জেলার বিভিন্ন ধর্মীয়, শিক্ষা ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে কাজ করে চলেছেন। অতি সাধারণভাবে জীবন যাপন করা টি ইসলাম এলাকার সকলের অতি প্রিয় একজন মানুষ। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি ৩ ছেলে ও ২ মেয়ে সন্তানের জনক। আগামী দিনে সকলের পাশে থেকে সমাজ সেবার মাধ্যমে জীবন অতিবাহিত করতে সকলের সহযোগিতা ও দোয়া কামনা করেছেন তিনি।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *