Sharing is caring!

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘ড. কালাম স্মৃতি ইন্টারন্যাশনাল এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড ২০১৯’ তুলে দেন ড. কালাম আন্তর্জাতিক উপদেষ্টা পরিষদের পৃষ্ঠপোষক এবং চেয়ারম্যান রাষ্ট্রদূত শ্রী টি. ড. শ্রীনিবাসন -ফোকাস বাংলা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘ড. কালাম স্মৃতি ইন্টারন্যাশনাল এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড ২০১৯’ তুলে দেন ড. কালাম আন্তর্জাতিক উপদেষ্টা পরিষদের পৃষ্ঠপোষক এবং চেয়ারম্যান রাষ্ট্রদূত শ্রী টি. ড. শ্রীনিবাসন -ফোকাস বাংলা মানবতার কল্যাণে অবদান রাখায় ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি এ পি জে আব্দুল কালামের নামে প্রবর্তিত ড. কালাম স্মৃতি ইন্টারন্যাশনাল এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড ২০১৯ পেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যার হাতে পদকটি তুলে দেন ড. কালাম স্মৃতি ইন্টারন্যাশনালের প্রধান উপদেষ্টা টি পি শ্রীনিবাসন ও সংস্থাটির চেয়ারপারসন দীনা দাস। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে সহযোগিতামূলক মনোভাব থাকলে নিজ দেশের উন্নয়নও সম্ভব। এই পদক জনগণের বৃহত্তর উন্নয়নে কাজ করতে আরো উৎসাহ যোগাবে। বাংলাদেশ-ভারতের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কোন্নয়ন ও মানবতার কল্যাণে অবদান রাখায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে এ পুরস্কার দেয়া হয়। মুক্তিযুদ্ধে ভারতের অবদানের কথা স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে সমস্যা থাকলেও আলোচনার মাধ্যমে সমাধান সম্ভব। বাংলাদেশ বন্ধুত্বসুলভ প্রতিবেশীর মনোভাব নিয়ে সবসময় ভারতের সঙ্গে কাজ করছে। যার ফলে দু’দেশের সম্পর্ক আজ উচ্চমাত্রায় পৌঁছেছে। ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিশিষ্ট বিজ্ঞানী, ভারতরত্ন ড. এ পি জে আব্দুল কালামের স্মৃতির প্রতি সম্মান জানিয়ে চালু হয় ড. কালাম স্মৃতি ইন্টারন্যাশনাল এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড-২০১৯। ৮৪ বছর বয়সে ২০১৫ সালের ২৭ জুলাই মারা যান সাবেক রাষ্ট্রপতি এ পি জে কালাম। এরপর তার স্মৃতির উদ্দেশ্যে প্রবর্তিত হয় ড. কালাম স্মৃতি ইন্টারন্যাশনাল এক্সেলেন্স অ্যাওয়ার্ড। পুরস্কার প্রবর্তনের পর ২০১৬ সালে প্রথম এই অ্যাওয়ার্ড দেয়া হয় মালদ্বীপের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লাহ ইয়ামিনকে। পরের দু’বছর এ অ্যাওয়ার্ড দেয়া হয় ঘানা ও মরিশাসের প্রেসিডেন্টের হাতে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *