Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার \ বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এ্যাড. রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, মিয়ানমার রাখাইন রাজ্যের মুসলিম রোহিঙ্গা সংটক দৃর্শ্যমান। মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা শরণার্থীদের ত্রাণ সামগ্রীসহ বিভিন্ন সহায়তা না দিয়ে আওয়ামীলীগ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুসলামের সন্তান হয়ে অমুসলিমের মত আচরণ করেছে। পাশাপাশি বিএনপির উদ্যোগে যখন মুসলিম রোহিঙ্গাদের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করতে গেলেন বিএনপির নেতৃবৃন্দ তখন আওয়ামীলীগের শাষিত পুলিশ বাহিনী আমাদের সেখানে যেতে বাধা দিয়েছে। আর তাই দেখি আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ফেরিওয়ালা হয়ে বক্তব্য দিচ্ছেন আমরা নাকি ত্রাণ নিয়ে যায়নি। তার বক্তব্যের মধ্যে পাওয়া যায় তিনি আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নয়, তিনি আওয়ামীলীগের ফেরিওয়ালা। বক্তব্যে তিনি বর্তমান সরকারের বিভিন্ন কর্মকান্ডেরও সমালোচনা করেন। শনিবার দুপুরে চাঁপাইনবাগঞ্জ সন্ধ্যা কমিউনিটি হলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা ও পৌর বিএনপি আয়োজনে দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। সদর উপজেলা শাখা বিএনপির সভাপতি তসিকুল ইসলাম তসির সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, বিগত ২০১৩-১৪ সালে গণতন্ত্র রক্ষা ও নিরপেক্ষ সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবিতে তুমুল আন্দোলন চলাকালে পুলিশের বেপরোয়া লুটপাট, নেতাকর্মীদের বাড়ি-ঘর ভাঙচুর, আওয়ামীলীগের সন্ত্রাসী বাহিনী ছাত্রলীগ-যুবলীগ ও আওয়ামীলীগের নেতাদের দেয়া বিএনপি নেতাকর্মীদের বাড়িতে অগ্নিসংযোগ দেয়ার পরও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার তৃণমূল বিএনপির নেতাকর্মীদের গড়ে তোলা আন্দোলনকে দমিয়ে রাখতে পারেনি শেখ হাসিনার পুলিশ বাহিনী। এই জেলার মাটি যেমন উর্বর, ঠিক তেমন-ই জেলা বিএনপির নেতাকর্মীদের মনপ্রাণ উর্বর। মাটিতে যেমন সার-বিষ, কীটনাশক না ব্যবহার করে ফসল ফলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা বিএনপির সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের ধানের শীর্ষের জন্য সংগঠিত হয়ে এক কাতারে কাজ করে। এটাই বিএনপির চিত্র। আর আওয়ামীলীগের চরিত্র হলো বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের ত্রাণ, রোহিঙ্গাদের ত্রাণ, দরিদ্রদের বিভিন্ন সহায়তার আর্থিক অর্থ লুটপাট করা। এছাড়া সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর আসনের সাবেক এমপি মোঃ হারুনুর রশিদ, সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. সৈয়দা আশিফা আশরাফি পাপিয়া, জেলা বিএনপির উপদেষ্টা আলহাজ্ব শামসুল হক, জেলা শাখা বিএনপির সহ-সভাপতি আলহাজ্ব আশরাফুল আলম রশিদ, সদর উপজেলা শাখা সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম মতি, জাতীয় আইনজীবী সমিতির জেলা শাখার সহ-সভাপতি এ্যাড. নুরুল ইসলাম সেন্টু, গোমস্তাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা মোঃ বাইরুল ইসলাম, নাচোল উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা আবু তাহের খোকন, সদর উপজেলা শাখা ভারপ্রাপ্ত সহ- সাংগঠনিক সম্পাদক আ.ক.ম শহিদুল ইসলাম পলাশ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর শাখা বিএনপির সহ-সভাপতি শাহ-নেওয়াজ খান সিনা, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল বারেক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবীর, পৌর শাখা যুবদলের সভাপতি নজরুল ইসলাম, জেলা শাখা ছাত্রদলের আহŸায়ক আব্দুর বারি ও নবাবগঞ্জ সরকারী কলেজ শাখার ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক হামিদুর রহমান প্রমূখ। সম্মেলনে জেলার সহস্রাধিক বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। সম্মেলন চলাকালে একই এলাকায় জেলা বিএনপির একাংশের নেতা-কর্মীরা বিক্ষোভ করে সমাবেশ করার চেষ্টা করলে সংঘর্ষ শুরু হয়। এসময় ইট-পাটকেল ও ককটেল ছুড়ে বিদ্রোহী গ্রæপের লোকজন। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনে। তবে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *