Sharing is caring!

কানসাটের কলাবাড়ী বাইপাস রাস্তাটি সংস্কারের

অভাবে দূর্ভোগে এলাকাবাসী ॥ জরুরী সংস্কারের

দাবী

♦ স্টাফ রিপোর্টার 

সংস্কারের অভাবে দিন দিন খারাপ হওয়ায় চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার কানসাট পুরাতন ব্রিজ থেকে কলাবাড়ী বাইপাস পর্যন্ত এ রাস্তাটি চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। একটু বৃষ্টি হলেই জমে থাকে পানি। ফলে চরম দূর্ভোগে চলাচলকারীরা।
শনিবার সকালে সরেজমিনে দেখা গেছে, বৃষ্টি হলেই রাস্তাটিতে পানি জমে যায়। পানি নিস্কাসনের কোন ড্রেন বা অন্য কোন ব্যবস্থা না থাকায় দিনের পর দিন পানি জমে থাকে রাস্তায়। দীর্ঘদিন ধরেই পানি জমে থেকে দূর্ঘন্ধ ও নষ্ট কাদাযুক্ত এবং নোংরা পানি দিয়েই চরম কষ্টের মধ্য দিয়ে যাতায়াত করছে এলাকার মানুষসহ অন্যান্য যানবাহনও। প্রায় ৩ বছর থেকে রাস্তাটির এই বেহাল দশা থাকলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নজরে পড়েনি এবং সংস্কারের কোন উদ্যোগও নেয়া হয়নি।
স্থানীয় এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে স্থানীয় সংসদ সদস্য, শিবগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় প্রশাসনের কাছে দাবি জানালেও এখন পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা হয়নি বলেও জানা গেছে। জনগুরুত্বের কথা বিবেচনায় রাস্তাটি সংস্কারে এগিয়ে আসবেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এমনটায় আশা করছেন ভূক্তভোগী এলাকাবাসী।
এব্যাপারে কানসাট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বেনাউল ইসলাম বলেন, যদিও কানসাট পুরাতন ব্রিজ থেকে কলাবাড়ী বাইপাস পর্যন্ত রাস্তাটি পার্শ্ববর্তী মোবারকপুর ইউনিয়নের মধ্যে পড়ে। রাস্তাটি আসলেই চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। কানসাট আম বাজার আসার এই গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটি সংস্কার করা প্রয়োজন।
এব্যাপারে মোবারকপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তৌহিদুর রহমান মিয়া জানান, কানসাট পুরাতন ব্রিজ থেকে কলাবাড়ী রাস্তাটি আগের মূল রাস্তা ছিলো। বিশ্বরোড হওয়ার পর রাস্তাটির দিকে কোন নজরই নেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের। অথচ এখনও বিভিন্ন এলাকার মানুষ এই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করে। কর্তৃপক্ষের কোন দৃষ্টি না থাকায় দিন দিন রাস্তাটির অবস্থা খারাপ হচ্ছে। ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে অর্থ সংকুলান না হওয়ায় রাস্তাটি মেরামত বা সংস্কার করা সম্ভব হয়না। বর্তমানে আম মৌসুমে অনেক মানুষ এই রাস্তা দিয়ে কানসাট আম বাজারসহ বিভিন্ন এলাকায় যাতায়াত করে। জনগুরুত্ব দিয়ে দ্রুতই এই রাস্তাটি সংস্থার বা পূনঃ নির্মাণ জরুরী হয়ে পড়েছে বলেও তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেন।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *