Sharing is caring!

প্রেস বিজ্ঞপ্তি \ রবিবার “২৬তম আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস” ও “১৯তম জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস” উদযাপিত হয়েছে। দিবসটি উদ্যাপন উপলক্ষ্যে “ন্যাশনাল সোসাইটি অব দি ব্লাইন্ড এন্ড র্পাশ্যালী সাইটেড (এনএসবিপি)” ও খুলনা অন্ধ কল্যাণ সমিতি (কেবিডব্লিউএ)-এর যৌথ আয়োজনে ফুলবাড়ীগেটস্থ নিবিড় আবাসিক এলাকায় এনএসবিপি’র প্রেসিডেন্ট লায়ন মাইন উদ্দিন চৌধুরী শান্তির প্রতীক পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে দিবসটি উদ্বোধন করে। পরে মটর শোভাযাত্রা বের হয়। শোভাযাত্রাটি খানজাহান আলী, দৌলতপুর, খালিশপুর, সোনাডাঙ্গা থানাসহ সদর থানার বিভিন্ন এলাকা প্রদক্ষিণ করে ফুলবাড়ীগেটস্থ এনএসবিপি’র কার্যালয়ে এসে শেষ হয়। এরপর বিকালে আলোচনা সভায় এনএসবিপির প্রেসিডেন্ট লায়ন মাইন উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত ডিআইজি (অপরাধ), মোঃ হাবিবুর রহমান বিপিএম, আরআরএফ কমান্ড্যান্ট (এসপি) তাসলিমা খাতুন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ সজীব খান, জেলা পরিষদের সদস্য সাজ্জাদুর রহমান লিংকন, বাংলাদেশ কেবল শিল্প লিঃ ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার মোঃ সিরাজুল ইসলাম। আলোচনা সভায় সভাপতি লায়ন মাইন উদ্দিন চৌধুরী বলেন, দেশের দৃষ্টিহীন ও দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অধিকার সুরক্ষা ও তাদের জীবনমান উন্নয়নের লক্ষ্যে এনএসবিপি গত ১১ বছর যাবত বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, পুলিশ, বিজিবি সদস্যদের ব্যক্তিগত অনুদানে খুলনাসহ দেশের ৩৩টি জেলায় তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। তিনি আরও বলেন, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জীবনমান উন্নয়নের লক্ষ্যে কারিগরি প্রশিক্ষণ ও সমাজ ভিত্তিক পূনর্বাসনের ক্ষেত্রে সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহণ ও সহযোগিতা অপরিহার্য, এই পরিকল্পনায় সুদুরপ্রসারী ভূমিকা রাখবে বলে আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি। এ দেশে প্রায় ১ কোটি ৬০ লক্ষ মানুষ কোন না কোনভাবে প্রতিবন্ধী। এ বিশাল জনগোষ্ঠিকে এককভাবে সরকারের পক্ষে ও একটি মাত্র সংগঠনের মাধ্যমে সমাজের মূল স্রোতধারায় সম্পৃক্ত করা সম্ভব নয়। তাই সামাজিক দায়িত্ববোধ নিয়ে সমাজের সর্বস্তরের মানুষের এগিয়ে আসা আবশ্যক। আলোচনা শেষে ফুলবাড়ীগেট, খানজাহান আলী, খুলনায় দৃষ্টিহীন ও দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মাঝে চলার সহায়ক সাদাছড়ি, ব্রেইল শিক্ষা উপকরণ, দৃষ্টিপ্রতিবন্ধীত্বসহ শারীরিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মাঝে হুইল চেয়ার, ক্রাচ ও শীতবস্ত্র এবং বিভিন্ন বিদ্যালয় ও মহাবিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের মাঝে মাসিক শিক্ষা বৃত্তি ইত্যাদি বিতরণ করা হয় এবং মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় প্রায় ৫০০ জন প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের উপস্থিতি ছিলেন।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *