Sharing is caring!

গরু চোরাচালান বন্ধে সীমান্তে সচেতনতায় চাঁপাইনবাবগঞ্জস্থ ৫৩ বিজিবি

♦স্টাফ রিপোর্টার 

আসন্ন ঈদ-উল আযহাকে সামনে রেখে চাঁপাইনবাবগঞ্জের সীমান্ত এলাকা দিয়ে ভারতীয় গরু চোরাচালান বৃদ্ধির আশংকায় সীমান্তের সাধারণ মানুষের মাঝে বিভিন্ন সচেতনতামূলক কার্যক্রম চালাচ্ছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জস্থ ৫৩ বিজিবি। একই সাথে প্রতিবেশী দেশ থেকে করোনা মহামারী সময়ে করোনা সংক্রম এড়াতেও প্রচারণা চালানো হচ্ছে ৫৩ বিজিবি’র পক্ষ থেকে। সোমবার এ সংক্রান্ত চাঁপাইনবাবগঞ্জস্থ ৫৩ বিজিবি’র অধিনায়ক মোহাম্মদ সুরুজ মিয়া পিএসসি-এসি’র পাঠানো প্রেসনোটে জানানো হয়, সীমান্ত রক্ষায় সর্বদা নিষ্ঠার সাথে কাজ করে চলেছে বিজিবি। চলমান বর্ষা মৌসুমে নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় এবং আসন্ন ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে অত্র ব্যাটালিয়নের দায়িত্বপূর্ণ সীমান্ত এলাকায় গরু চোরাচালান বৃদ্ধির সম্ভবনা রয়েছে। দেশের সীমান্ত এলাকার যারা চোরাচালানী কার্যক্রমের সাথে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত, তাদের তৎপরতা বৃদ্ধি পেয়েছে। এ ধরণের অবৈধ কার্যকলাপ বৃদ্ধির ফলে চোরাচালান বৃদ্ধিসহ সীমান্তবর্তী এলাকায় বসবাসরত জনসাধারণের জানমাল ও জীবনের নিরাপত্তা ঝুঁকির সম্মুখিন হবে। এছাড়াও বর্তমানে কোভিড-১৯ এর বৈশ্বিক মহামারীর প্রকোপে প্রতিবেশী দেশ মারত্মকভাবে সংক্রমিত হচ্ছে। সীমান্ত পারাপারের ফলে উক্ত মহামারী বাংলাদেশের জন্য আরও মারাত্মক হুমকীর কারণ হতে পারে। প্রেক্ষিতে দেশীয় গরু উৎপাদনকে উৎসাহিত করা এবং বিদেশী পন্য অবৈধভাবে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে প্রবেশ করতে না পারে, সে লক্ষে চোরাচালান প্রতিরোধ এবং সীমান্ত এলাকার নিরাপত্তা রক্ষায় ব্যাটালিয়নের দায়িত্বপূর্ণ সীমান্ত এলাকায় কঠোর নজরদারী বৃদ্ধিসহ টহল তৎপরতা জোরদার করা হয়েছে। এছাড়া রাত্রিকালীন টহল বৃদ্ধির মাধ্যমে গোয়েন্দা তৎপরতা বাড়ানো হয়েছে। এব্যাপারে স্থানীয় সাংসদ, জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার এর সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে মাইকিং এবং বিভিন্ন মাধ্যমে সীমান্তের স্থানীয় জনগনদের সচেতনতা বৃদ্ধি, কোম্পানী/বিওপি পর্যায়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সহায়তায় গরুসহ অন্যান্য পণ্য চোরাচালান প্রতিরোধে জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *