Sharing is caring!

গুজব প্রচারণা করে অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টিকারীদের

বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হোক

নিছক মিথ্যা একটি গুজব প্রচারণা করে দেশে অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছেন বিশিষ্ট জনেরা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ বিভিন্ন প্রচার মাধ্যমে সময়ে সময়ে মিথ্যা, উদভট, গুজব প্রচারণা চালিয়ে দেশে অস্থিশিল পরিস্থিতি সৃষ্টি করছে একটি সড়যন্ত্রকারী মহল। ‘পদ্মা সেতুতে মাথা লাগবে’ ‘ছেলেধরা সেজে শিশুদের ধরে নিয়ে যাবে’ এরকম কোন কথা না বুঝে, না জেনেই, মনমতো যে কোন ধরণের মন্তব্য বা লেখা প্রচার করা হচ্ছে। অভিভাবকদের মাঝে আতংক সৃষ্টি করা হচ্ছে। এসব ষড়যন্ত্রকারীরা এমনভাবে মিথ্যা বা গুজবগুলোকে প্রচারণা করে, যে সাধারণ মানুষ বিভ্রান্তির মধ্যে পড়ে যায়। গুজবকে নিয়েই মেতে উঠে। এসবের উৎস কোথায়, এসব ষড়যন্ত্রকারীদের প্রচারণার মাধ্যমগুলো একবারেই বন্ধ করে দেয়া প্রয়োজন। অন্যথায় একটা বিষয় নিয়ে ষড়যন্ত্রমূলক প্রচারণা বন্ধ হতে না হতেই আরেকটি গুজব প্রচারণার চেষ্টা চালায় এসব কুচক্রী মহল। কিন্তু এভাবে সারা দেশে উত্তেজনা বা অরাজক পরিস্থিতি সৃষিকারীদের খুঁজে বের করে কেন কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না। এসব গুজবের উৎস খুঁজে বের করে সামাজিক ও রাষ্ট্রীয়ভাবে সচেতন হয়ে কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা নিতে হবে। অন্যথায় এদের সাহস বেড়ে নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছে দিন দিন। পাশাপাশি দেশের মানুষকেও সতর্ক ও সচেতন হওয়া অত্যন্ত জরুরী। একটি কথা শুনেই, ওই কথার সত্যতা যাচায়-বাছায় না করেই মেতে ওঠা, সেটাও ভেবে দেখা দরকার সকলের। মানুষ খারাপ বিষয় নিয়ে সমালোচনা-আলোচনা করতে ভালোবাসে, কিন্তু তাই বলে সত্য-মিথ্যা যাচায় করাও তো একজন বিবেকবান মানুষের কর্তব্য। তাই গুজব প্রচারণার উৎসের বিষয়গুলোর তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এমনটায় আশা করছেন জেলার সচেতন মহল। উল্লেখ্য, জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, ইসলামিক ফাউন্ডেশন জেলায় গুজব প্রতিরোধে সচেতনতামূলক বিভিন্ন প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *