Sharing is caring!


গোদাগাড়ী থেকে সফিকুল ইসলাম \ রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলায় বেনীপুর গ্রামে জঙ্গি আস্তনায় “অপারেশন সান ডেভিল” অভিযান সমাপ্ত ঘোষনা করেছে পুলিশ। শুক্রবার বেলা ১টার দিকে অতিরিক্ত ডিআইজি নিশারুল আরিফ সাংবাদিকদের একথা জানান। তিনি জানান, দ্বিতীয় দিনের ‘অপারেশন সান ডেভিল’ বিশেষ জঙ্গি অভিযানে ওই বাড়ির ভেতর থেকে আর কাউকে উদ্ধার বা কোন লাশ পাওয়া যায়নি। তবে সেই বাড়ী থেকে ১১টি বোমা, একটি পিস্তল, ২ রাউন্ড গুলি, ১টি ম্যাগজিন ও জেহাদী বই পাওয়া গেছে। ঢাকা থেকে আসা বোমা নিক্রিয় দলের সদস্যরা সকাল ১০টা ৩৬ মিনিটের সময় উদ্ধারকৃত ১১ টি বোমার মধ্যে ১টি বোমা বিস্ফোরন ঘটায়, পরে ১০ বোমা নিক্রিয় করে। তিনি আরো জানান, আশরাফ ছিল একজন শীর্ষ পর্যায়ের জঙ্গী। এদিকে অভিযানে নিহত সাজ্জাদ আলী মিষ্টু (৫০), তাঁর স্ত্রী বেলী বেগম (৪৫), ছেলে আল-আমিন (২০) ও মেয়ে কারিমা খাতুন (১৭)। তাঁদের কারোরই লাশ নেবেন না বলে জানিয়েছেন নিহত জঙ্গি সাজ্জাদের মা মারজাহান বেওয়া। সকাল ১২ টার সময় নিহত ওই ৫ জঙ্গির লাশ ময়না তদন্তের জন্য পুলিশ রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। অভিযান সান ডেভিল সমাপ্ত হওয়ায় এই এলাকা থেকে ১৪৪ ধারা প্রত্যাহার করা হয়েছে বলে জানান অতিরিক্ত ডিআইজি নিশারুল আরিফ। অভিযানের দ্বিতীয় দিন সকাল ৯টার কিছু আগে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ঢাকা থেকে আসা ১২ সদস্যের বোমা বিষেশজ্ঞ টিম অভিযান শুরু করে। এছাড়াও ফায়ারম্যান মতিন মৃত্যুর ঘটনা তদন্তে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে ফায়ার সার্ভিস। উল্লেখ্য, বুধবার দিবাগত রাত ৮ টা থেকে গোদাগাড়ী উপজেলার মাটিকাটা ইউনিয়নের মাছমারা বেনীপুর গ্রামে জঙ্গি আস্তানা হিসেবে ওই বাড়িটি সনাক্ত করে পুলিশ। রাত্রী ১১ টার সময় পুলিশ অভিযান পরিচালনা করে বাড়ী ঘিরে রাখে। বৃহস্পতিবার সকাল ৮ টার সময় জঙ্গিরা আত্বঘাতি বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে পুলিশ ও ফায়ারম্যানদের উপর দেশিও অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। জঙ্গিদের হামলায় ২ পুলিশ সদস্যরা আহত হয় ও ফায়ারম্যান মতিন মারা যায়। অভিযানে ৫ জঙ্গি মারা যায়। নিহত জঙ্গিরা হলো-সাজ্জাদ, তার স্ত্রী বেলি, তাদের বড় ছেলে আলামিন, মেয়ে কারিমা খাতুন ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের আশরাফুল ইসলাম। এছাড়া পুলিশের কাছে আত্মসমার্পন করে এক নারী জঙ্গি সুমাইয়া। দুই শিশুকে ওই বাড়ীর বাইরে থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *