Sharing is caring!

গোদাগাড়ী প্রতিনিধি ঃ  গোদাগাড়ীতে ৩ সন্তানের জনক গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার ঘটনা এলাকায় ধুম্রজালের সৃষ্টি হয়েছে। শুক্রবার ভোর ৫ টার সময় উপজেলার মাটিকাটা ইউনিয়নের হরিশংকরপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, উপজেলার হরিশংকরপুর গ্রামের মৃত আব্দুল খলিলের ছেলে ৩ সন্তানের জনক বাবলু (৫০) শারীরিক ভাবে প্যারালাইসিস রোগে ভুগছিলেন। সে সুস্থ অবস্থায় রিক্সা চালাতেন। সংসার অভাব অনাটন ছিল নিত্য সঙ্গী। হঠাৎ করে নিজ বাড়ী থেকে ৩’শ গজ দূরে মিজানুর রহমান এর হলুদ ¶েতের মধ্যে আতা গাছের ডালের সরজমিন থেকে প্রায় ৪ ফিট উপরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। নিহত বাবলুর শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ¶ত বি¶ত ও তার পুরুষলিঙ্গ দিয়ে রক্ত বের হচ্ছিল। এ আত্মহত্যা নিয়ে এলাকায় ব্যাপক গুঞ্জন সৃষ্টি হয়েছে। তার সংসারে ১ মেয়ে ও ২ ছেলে রয়েছে। এ ব্যাপারে গোদাগাড়ী মডেল থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে। প্রেমতলী পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক পার্থ প্রতীম বলেন, লাশের ময়না তদন্তের রির্পোট না পাওয়া পর্যন্ত হত্যা না আত্মহত্যা তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। এব্যাপারে গোদাগাড়ী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হিপজুর আলম মুন্সি জানান, বাবলু নিজে আত্মহত্যা করেছে না অন্য কেউ হত্যা করেছে তা অভিযোগ পাওয়া গেলে তদন্ত সাপে¶ে এবং লাশের ময়না তদন্তের রির্পোট আসলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এদিকে নিহত বাবলুর ছোট বোন লুৎফুন নেসা দাবী করেন, আমার ভাই প্যারালাইসিসের রোগী। সে একজন অসুস্থ মানুষ। সে কেন আত্মহত্যা করবে আমার বোধগোম্য হচ্ছে না। আত্মহত্যা করলে বাড়ীতে করতো। বাড়ী থেকে ৩’শ গজ দূরে একটি ফাকা মাঠের ভিতর আতা গাছে সরজমিন থেকে ৪ ফিট উপরে কি করে আত্মহত্যা করতে পারে। বিষয়টি প্রশাসনের ক্ষতিয়ে দেখা উচিৎ। নিহত বাবলুর স্ত্রী বিজলী জানান, আমার ¯^ামী শারীরিক অসুস্থতার কারণে মাঝে মধ্যেই আত্মহত্যা করার কথা বলতো। আল্লাহ ভাল জানেন আমার ¯^ামী আত্মহত্যা করেছে না কেউ আমার অজান্তে মেরে ফেলেছে জানি না। এদিকে মাটিকাটা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান গোলাম আযম তৌহিদ জানান, বাবলু গরীব দিনমজুর রিক্সা চালাতো, সে বেশ কিছুদিন থেকে শারীরিক অসুস্থ ছিলেন এবং ভাল মানুষ ছিলেন। তার এমন মৃত্যুতে তার পরিবারের প্রতি গভীর শোক ও শোকশপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *