Sharing is caring!

গোমস্তাপুর প্রতিনিধি \ জেলার গোমস্তাপুরে গত রোববার আটক মেছো বাঘটির কোন হদিস নেই। প্রাথমিকভাবে বনবিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হলেও বাঘটি নিয়ে জনমনে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। স্থানীয় লোকজন বাঘটি খাঁচাবন্দী অবস্থায় উপজেলার বাঙ্গাবাড়ী সীমান্ত এলাকায় নিয়ে যেতে দেখেছেন বলেও জানা গেছে। অনেকের ধারণা এটি ভারতে পাচার করা হয়েছে। এব্যাপারে গোমস্তাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফিরোজ মাহমুদ জানান, বাঘটি স্থানীয় বন বিভাগের কর্মকর্তা ইসমাইল হোসেনের কাছে হস্থান্তর করা হয়। এরপর আহত ও বন্দী বাঘটি কি করা হয়েছে, তিনি এ সর্ম্পকে জানেননা বলে জানান। বাঙ্গাবাড়ী থেকে একজন প্রত্যাক্ষদশী মোহাম্মদ আযম আলী জানান, তিনিসহ আরো অনেকে রোববার সন্ধায় বাঘটি খাঁচাবন্দী অবস্থায় বাঙ্গাবাড়ী সীমান্তের কাছে নিয়ে যেতে দেখেছেন। এরপর খবর রটে যে বাঘটি ভারতে পাচার করা হয়েছে। এব্যাপারে বন বিভাগের কর্মকর্তা ইসমাইল হোসেনের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, বাঙ্গাবাড়ী চুড়ল বিল সীমান্তের কাছে বাঘটিকে অবমুক্ত করা হয়েছে। কিন্তু ঔ এলাকার বাঘের বসবাসের জন্য উপযুক্ত কোন বনজঙ্গল নেই। তাছাড়া বাঘ অবমুক্ত করার বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসন বা গণমাধ্যমকর্মী কাউকে জানানো হয়নি। এমনকি যে এলাকায় অবমুক্ত করা হয়েছে, তার অদুরে বিজিবি-১৬ ব্যাটালিয়নের বাঙ্গাবাড়ি ক্যাম্প রয়েছে, তারাও এ বিষয়টি জানেননা বলে জানান। উল্লেখ্য, গত রবিবার বোয়ালিয়া ইউনিয়নের মলিনচক বিল থেকে জনগণ মেছো বাঘটি আটক করে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট হস্থান্তর করা হয়।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *