Sharing is caring!

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি \ চাঁপাইনবাবগঞ্জে ব্যবসা করার নামে টাকা নিয়ে আত্মসাতের অভিযোগে করা একটি মামলায় প্রতারণাকারীকে ১ বছর সশ্রম কারাদন্ড ও ২০ লক্ষ টাকা অর্থদন্ড দিয়েছেন আদালত। চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা যুগ্ম জজ ১ম আদালতের বিচারক ২০১৭ সালের ৪ জানুয়ারী এই রায় প্রদান করেন। আমলী আদালত (ক) অঞ্চলের মামলা নম্বর-১৩৫/সি-২০১৫(নবাব) (সেসন নম্বর-৫১১/১৫)। দন্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তি হচ্ছে, সদর উপজেলার রামচন্দ্রপুরহাট কৃষ্ণগোবিন্দপুরের ধুমিহায়াতপুর গ্রামের মৃত হাবিবুর রহমানের ছেলে মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন (৬৩)। মামলার বাদি আলহাজ্ব মোঃ আব্দুল লাহেল বাকি মিয়া ও মামলার বিবরণীতে জানা যায়, মামলার প্রায় ১ বছর পূর্বে ব্যবসা করার উদ্দেশ্যে ২০ লক্ষ টাকা নেয় মোয়াজ্জেম হোসেন। নির্ধারিত সময়ে টাকা না দেয়ায় বাদি টাকার জন্য বার বার তাগাদা দেয়। অবশেষে মোয়াজ্জেম সোনালী ব্যাংক চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর শাখার সঞ্চয়ী হিসাব নম্বর-৩৪১৪০৬৪৮ এ ২০ লক্ষ টাকার চেক প্রদান করেন। মামলার বাদি গত ২০১৫ সালের ১৪ জানুয়ারী চেকটি ব্যাংকে কালেকশনের জন্য জমা দিলে উক্ত সঞ্চয়ী হিসাব নম্বরে উক্ত পরিমান টাকা না থাকায় চেক ডিজঅনার সার্টিফিকেট প্রদান করেন সোনালী ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। পরে মোয়াজ্জেম হোসেনকে গত ২১/০১/২০১৫ইং তারিখে এ্যাডভোকেট দ্বারা লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয় এবং মোয়াজ্জেম হোসেন নোটিশ গ্রহণ করেন। কিন্তু তারপরও বাদি আব্দুল লাহেল বাকি মিয়াকে টাকা ফেরত না দেওয়ায় মামলা করা হয়। এই মামলায় বিচারক আসামীকে ১ বছর সশ্রম কারাদন্ড ও ২০ লক্ষ টাকা অর্থদন্ড দেন। মামলার বাদি আব্দুল লাহেল বাকি মিয়া ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, তাঁর সাথে টাকা নিয়ে প্রতারণা করায় আদালত প্রতারণাকারী মোয়াজ্জেমকে ১ বছর সশ্রম কারাদন্ড ও ২০ লক্ষ টাকা অর্থদন্ড দিয়েছেন। আদালতের রায় হওয়া প্রায় ৩ মাস হতে চললেও আসামী পলাতক অবস্থায় আছে। এখন পর্যন্ত আসামী প্রকাশ্য ঘুরে বেড়ালেও আত্মসমর্পন বা টাকা পরিশোধ না করায় তিনি দুশ্চিন্তাগ্রস্থ এবং আতংকগ্রস্থও। তিনি রায় কার্যকরের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা জজ কোর্টের আইনজীবী এ্যাড. মোঃ  ময়েজ উদ্দিন।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *