Sharing is caring!

চাঁপাইনবাবগঞ্জের ঐহিত্যবাহী রেশম চাষে

আশার আলো : রেশম চাষীদের মুখে হাসি

♦ রিপন আলি রকি 

বাংলাদেশের রেশম উৎপাদনের মূল উৎপত্তি স্থান চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার ভোলাহাটে অগ্রহায়নী ক্রপে রেশমের বাম্পার ফলন হওয়ায় চাষীদের মুখে হাসি ফুটেছে। রেশম বীজাগার ভোলাহাট সূত্র জানায়, ভোলাহাট উপজেলায় অগ্রহায়নী ক্রপে মোট ২২৩জন রেশম চাষী রেশম চাষ করেন। মোট রেশম চাষীর মাঝে ২২ হাজার ডিম বিতরণ করে রেশম বীজাগার ভোলাহাট। এ ডিম থেকে গুঠি উৎপাদন হয়েছে ১৭ হাজার ৬০০ কেজি। গত বছর এ ক্রপে ডিম বিতরণ করা হয়েছিল ১৫ হাজার । এ ডিমে গুঠি উৎপাদন হয় ৯ হাজার ৮শত কেজি। গত বছরের তুলনা এ বছর ৩গুন বেশী রেশম গুঠি উৎপাদন হয়েছে। সূত্র আরো জানায়, এ বছর চাষীরা ১শত ডিমে সর্বচ্চো ৯১ কেজি গুঠি পেয়েছেন। গড়ে উৎপাদন হয়েছে ৮০ কেজি করে। সূত্র জানায়, এ বছর ডিমের মান খুব ভাল ছিল এবং চাষীদের প্রয়েজনীয় সব ধরণের পরামর্শ প্রদানে রেশম বোর্ডের কর্মকর্তা কর্মচারীরা মাঠপর্যায়ে কঠোর পরিশ্রম করেছেন। এ ব্যাপারে রেশম চাষী চরধরমপুর গ্রামের সমিরুদ্দিন জানান, এ বছর রেশমের বাম্পার ফলন হয়েছে। রেশম গুটি গত বছর অগ্রহায়নী ক্রপের উৎপাদনের চেয়ে এ বছর তিনগুণ ফলন বৃদ্ধি পেয়েছে। দামও ভাল। মণ প্রতি ১৫ হাজার টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে রেশম গুটি। ফলে চাষীরা এ বছর বেশ লাভবান হওয়ায় বেশ খুশিতে রয়েছেন। তিনি বলেন, রেশম বোর্ড ভোলাহাটের সার্বিক সহযোগিতা সব সময় পেয়েছেন। তারা ঘর, তুঁত চারাসহ বিভিন্ন সহযোগিতা পেয়ে থাকেন সংশ্লিষ্ট অফিস থেকে। তবে তারা জানিয়েছেন, তুঁত জমির অভাব থাকায় রেশম চাষে আগ্রহ কমে যাচ্ছে। তারা সরকারী ভাবে রেশম চাষের জমির ব্যবস্থা করার দাবী জানিয়েছেন। অপর একজন চাষী বজরাটেক গ্রামের হারুণ জানান, এ বছর রেশমের বাম্পার ফলন হওয়ায় তারা বেশ লাভবান হয়েছেন। রেশম চাষী তোফাজ্জুল হোসেন, সাইফুল্লাহ, মতিউর রহমান, জাক্কার একই কথা বলেন। এব্যাপারে জেলা রেশম সম্প্রসারণ কার্যালয় ভোলাহাটের সহকারী পরিচালক কাজী মাসুদ রেজা জানান, ভোলাহাটে পর্যাপ্ত তুঁত গাছ লাগানোর জমি না থাকায় বাম্পার উৎপাদন হওয়া সত্তে¡ও চাষীরা রেশম চাষে পিছিয়ে পড়ছেন। তিনি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে সরকারের দৃষ্টি আর্কষণ করে বলেন, সরকারী ব্যবস্থাপনায় তুঁত গাছ লাগানোর জমির ব্যবস্থা করে দিলে আগামীতে রেশমের ঐতিহ্য ফিরে পাবে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *