Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার \ ১০ দিন আগে মহালয়ার পুণ্য তিথিতে দেবীকে মর্ত্যে আবাহনের মাধ্যমে যে উৎসবের সূচনা হয়েছিল, শনিবার সকালে বিজয়া দশমীতে ‘বিহিত পূজা’ আর ‘দর্পণ বিসর্জনে’ দুর্গা পূজার শাস্ত্রীয় সমাপ্তি হয়। চাঁপাইনবাবগঞ্জের সকল মন্ডপের প্রতিমাগুলো শনিবার রাত ৮টার মধ্যেই দর্পণ বিসর্জনের মাধ্যমে দেবীকে কৈলাসের পথে বিদায় জানান সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। এবছর জেলায় মোট ১২৭টি পুজা মন্ডপে পুজা উৎসব চলছে। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ৫৫টি, শিবগঞ্জে ৩৫টি, গোমস্তাপুরে ২৪টি, নাচোলে ১১টি ও ভোলাহাটে ২টি মন্দিরে পুজা উদযাপন হয়। জেলা পুজা উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক প্রনব কুমার পাল জানান, এবছর চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় মোট ১২৭টি পুজা মন্ডপে শারদীয় দূর্গা পুজা উৎসব হয়েছে। সার্বিক নিরাপত্তার জন্য জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে সর্বত্র সকর্ত দৃষ্টি রাখা হয় এবং মন্ডপগুলোতে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়। শনিবার বেলা ১১ টার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শহরের শিবতলা কর্মকারপাড়া, শিব মন্দির ও বারঘরিয়া বাইশ পুতুল সর্বজনীন দূর্গা পূজা মন্ডপ পরিদর্শন করেছেন রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার মোঃ নূর উর রহমান। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মোঃ মাহমুদুল হাসান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এরশাদ হোসেন খান, পূজা উদযাপন পরিষদের সদর উপজেলা শাখার সভাপতি কনক রঞ্জন দাস। পরে বিভাগীয় কমিশনার শিবগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন পূজা মন্ডপ পরিদর্শন করেন। এদিকে ভক্তরা বলেন,  ‘বাবার বাড়ি বেড়ানো’ শেষে ‘আনন্দময়ী’ ফিরে যায় ‘কৈলাসের দেবালয়ে’। তাঁরা আরো বলেন, প্রথমে কচু ঘেচুর মাধ্যমে মহিষাসুর বা অশুভ শক্তির পূজা করা হয়েছে। তারপর সিদ্ধ চাল, কলা,  চিড়াসহ নানা দ্রব্যে দেবীকে ভোগ নিবেদন করা হয়। তারপর শাপলা শালুকে দেবীকে পূজা দেওয়া হয়। তারপর নবস্তোত্র, প্রদক্ষিণস্তোত্র, চন্ডীস্তোত্রে দেবী দুর্গার দর্পন বিসর্জনের মাধ্যমে শেষ হয় বিজয়া দশমীর আনুষ্ঠানিকতা। বিসর্জনের আগে নারী ভক্তরা নানা উপচারে ডালি সাজিয়ে নিয়ে আসেন। প্রত্যেকের ডালায় সিঁদুর। দেবীর চরণে সিঁদুর অর্পণের পর সেই সিঁদুর নিজের সিঁথিতে পরেন তারা। তারপর পরিয়ে দেন মন্ডপে আসা সধবাদের। পুরোহিতের সঙ্গে ‘আনন্দময়ী দুর্গাকে’ ফের মর্ত্যে আবাহনের সময় ভক্তরা ভেঙে পড়েন কান্নায়। কৈলাসের পথে দেবীকে বিদায় জানিয়ে ভক্তরা বলেন, এক সমৃদ্ধশালী, সুখী বাংলাদেশের প্রার্থনা করেছেন।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *