Sharing is caring!

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি \ চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলায় প্রেমিককে নিজ বাড়ীতে ডেকে নিয়ে পরিকল্পিতভাবে শ্বাসরোধ করে হত্যা মামলার প্রধান আসামী প্রেমিকা জয়তুন নেসা জবা (১৬) শুক্রবার বিকেলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট (‘ক’ অঞ্চল আমলী) শরিফুল ইসলামের আদালতে ১৬৪ ধারায় ¯^ীকারোক্তিমুলক জবানবন্দী দিয়েছে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, শুক্রবার বিকেল সাড়ে পাঁচটায় বিজ্ঞ ম্যাজিষ্ট্রেট ১৬৪ ধারায় ¯^ীকারোক্তিমুলক জবানবন্দী গ্রহণ শেষ করেন। এর আগে বৃহস্পতিবার সকাল নয়টায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের ঢাকা বাসস্ট্যান্ডে ঢাকাগামী কোচ সার্ভিস দেশ ট্রাভেলস কাউন্টার থেকে ঢাকা যাবার সময় জবাকে গ্রেপ্তার করে গোয়েন্দা পুলিশ। জবা গোমস্তাপুরের কাওয়াভাসা গ্রামের আমিনুল ইসলামের কন্যা ও বসনিটোলা উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ শ্রেনীর ছাত্রী। গত বছরের ৭ এপ্রিল (৬ এপ্রিল দিবাগত গভীর রাতে) প্রেমিকা জবা নিজ বাড়িতে প্রেমিক পাশের বসনিটোলা গ্রামের লাল মোহম্মদের ছেলে ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ আদিনা ফজলুল হক সরকারী কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান প্রথম বর্ষের ছাত্র মাসুদ রানাকে (২২) মোবাইল ফোনে ডেকে নেবার পর সে নিহত হয়। ওই দিনই এ ঘটনায় গোমস্তাপর থানায় জবাকে প্রধান অভিযুক্ত ও তার পরিবারের ১৭ জনকে আসামী করে মামলা করেন নিহতের পিতা। এরপরই ওই পরিবারের সবাই বাড়ী ছেড়ে পালিয়ে যায়। এজাহার সুত্র ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জানান, মাসুদ রানার সাথে ১ বছর যাবৎ প্রেমের সম্পর্ক ছিল জবার। ঘটনার রাতে সে মোবাইল ফোনে মাসুদকে নিজ বাড়ীতে ডেকে নেয়। ভোররাতে মাসুদকে জবার বাড়ী থেকে মৃত উদ্ধার করেন তাঁর আত্মীয়রা। এতদিন ওই মামলায় জবা পলাতক ছিল। এদিকে মাসুদকে হত্যার প্রতিবাদে এবং আসামীদের গ্রেপ্তার ও সাজার দাবীতে এলাকাবাসী ও কলেজের শিক্ষার্থীরা দীর্ঘদিন ধরে নানা কর্মসুচী পালন করে আসছে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *