Sharing is caring!

চাঁপাইনবাবগঞ্জের রহনপুর হানাদার

মুক্ত দিবস পালিত

♦ স্টাফ রিপোর্টার

চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলা সদর রহনপুর হানাদার মুক্ত দিবস উপলক্ষে নানা কর্মসূচী পালিত হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের আয়োজনে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পার্ঘ অর্পণ, আনন্দ র‌্যালী ও আলোচনা সভা হয়। এ উপলক্ষে রহনপুর বেগম কাচারী চত্বর থেকে একটি র‌্যালী বের হয়ে উপজেলার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে উপজেলা চত্ত্বরে আলোচনা সভায় মিলিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস, একাদশ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী ও সাবেক সংসদ সদস্য জিয়াউর রহমান, গোমস্তাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিহাব রায়হান, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের সদস্য হালিমা বেগমসহ অন্যরা।  এসময় স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা, উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতা, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, স্কুল কলেজের শিক্ষাথীরাসহ বিভিন্ন স্তরের মানুষ উপস্থিত ছিলেন। এই দিনে প্রাণপণ যুদ্ধ করে শত্রুপক্ষের কবল থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জে জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার রহনপুরকে মুক্ত করেন বাংলার দামাল ছেলেরা। ১৯৭১ সালের ১১ ডিসেম্বর মুক্তিযোদ্ধারা গোমস্তাপুর উপজেলা সদর রহনপুরে প্রবেশ করে। এসময় রহনপুর এবি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে অবস্থিত মিনি ক্যান্টনমেন্ট থেকে পাক সেনারা রহনপুর রেলস্টেশন দিয়ে পালিয়ে যায়। অত:পর মুক্তিযোদ্ধারা পার্শ্ববর্তী নাচোল উপজেলা মুক্ত করে জেলা সদর চাঁপাইনবাবগঞ্জ অভিমুখে রওনা হন। রহনপুর মুক্ত দিবসের স্মৃতিচারণ করে মুক্তিযোদ্ধা আকতার আলী খান কচি বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন এ এলাকা ৭নং সেক্টরের অধীন ছিল। ১৯৭১ সালের ১১ ডিসেম্বর খুব সকালে লে. রফিকের নেতৃত্বে প্রায় ৩০/৩৫ জনের মুক্তিযোদ্ধাদের একটি দল বাঙ্গাবাড়ী থেকে রহনপুর অভিমুখে রওনা হয়। পথে আলিনগর এলাকার মুক্তিযোদ্ধারাও তাদের সাথে যোগ দেন। এছাড়া মহানন্দা নদী পেরিয়ে বোয়ালিয়া এলাকার মুক্তিযোদ্ধারা রহনপুরে প্রবেশ করে। মুক্তিযোদ্ধারা রহনপুরে প্রবেশের আগেই ভোরে পাক সেনারা সেনা ক্যাম্প গুটিয়ে ট্রেনযোগে পালিয়ে যায়।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *