Sharing is caring!

SAM_4827 SAM_4830চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি \ চাঁপাইনবাবগঞ্জের শহীদ সাটু হল মার্কেটের ৩য় তলার সি ব্লকের ২ নম্বর দোকান ঘর জবর দখলের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে মার্কেটের ৩য় তলায় ছাদে এই সংবাদ করে শহীদ সাটু হল মার্কেটের ৩য় তলার ২ নম্বর দোকান ঘরের মালিক ও মোহাম্মদীয় টেইলার্সের মালিক শহরের মসজিদপাড়ার মৃত চাঁদমিয়ার ছেলে মোঃ তাইনুস উদ্দিন। এসময় চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এমরান ফারুক মাসুম, সাধারণ সম্পাদক মোহাঃ জোনাব আলী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি গোলাম মোস্তফা মন্টু, সাধারণ সম্পাদক কামালউদ্দিনসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার শহীদ সাটু হল মার্কেটের দোকান ঘরের পজিশন বন্দোবস্ত দেয়ার বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়। কোটেশনে মার্কেটের সি ব্লকের ২ নম্বর দোকানের পৌর কর্তৃপক্ষের দরপত্র মূল্যে দেয়া পজিশনের টাকা পৌরসভার তহবিলে জমা দেয় তাইনুস উদ্দিন। বিধিমত গত ২৯-৪-২০১০ তারিখে পৌর কর্তৃপক্ষ উক্ত দোকান ঘরের পজিশন হস্তান্তর ও দখল বুঝাইয়া দেয় তাইনুসকে। ওই দোকান ঘর পজিশন বুঝিয়া পাইয়া শান্তিপূর্ণভাবে টেইলার্সের ব্যবসা এবং পৌরসভাকে রশিদের মাধ্যমে দোকান ভাড়া ও বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করে আসছিল। ২ নম্বর দোকানের সঠিক মালিক তাইনুস কোন বিক্রির চুক্তিনামা বা দলিল না করলেও তাইনুসের ¯^াক্ষর জাল করে হঠাৎ করেই চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের মসজিদপাড়ার জনৈক ইমাম হোসেন (বাররো) একটি ভূয়া এবং জাল দলিল তৈরী করে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার কতিপয় কর্মকর্তার যোগসাজসে অস্টস্পভাবে রেদুয়ান টেইলার্স নামকরণ করে উক্ত দোকান ঘরের পজিশন বিক্রির একটি ভূয়া দলিল সৃষ্টি করে। পৌরসভার কতিপয় কর্মকর্তার যোগসাজসে মোটা অংকের উৎকোচের বিনিময়ে ভূয়া ও জাল দলিলকে সঠিক প্রতিয়মান করে সম্প্রতি তাইনুসের নাম পরিবর্তন করে চলতি মাসের ভাড়া ও বিদ্যুৎ বিলে মালিকের নাম ইমাম হোসেন নামে করেছে। বিষয়টি জানতে পেরে দ্রুত চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার সচিব ও মার্কেট কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করে এবং তার দোকান জবর দখলের কথা জানায়। কিন্তু পৌরসভা কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন অযুহাতে তাইনুসকে দিনের পর দিন হয়রানী করে। সংবাদ সম্মেলনে আরও বলা হয় ভূয়া পজিশন বিক্রয়নামা দলিলটিতে কোন তারিখ নেই এবং ইমাম হোসেনের পিতার নাম পর্যন্তও নেই। যা ভূয়া দলিল সৃষ্টি প্রমান করে। সংবাদিক সম্মেলনে তাইনুস আরও জানায়, চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা কর্তৃপক্ষ বেশকিছুদিন থেকেই জবর দখলকারী ইমাম হোসেনের সাথে জোগসাজস করে তাকে বিভিন্নভাবে হয়রানী এবং জটিলতার সৃষ্টি করেছে। পৌরসভার কতিপয় কর্মকর্তা মোটা অংকের উৎকোচের বিনিময়ে এসব ঘটনার সৃষ্টি করে তাকে হয়রানী এবং দোকান ঘরের পজিশন থেকে উচ্ছেদ করার হীন ষড়যন্ত্র করছে। তিনি সাংবাদিকদের কাছে তার প্রতি অন্যায় এবং অবিচারকারী কর্মকর্তাদের এবং জাল দলিল করে তার মালিকানার দোকান ঘর জবর দখলকারীর শাস্তির দাবিও জানান। এদিকে, ইমাম হোসেন (বাররো)’র করা শহীদ সাটু হল মার্কেটের সভাপতি/সম্পাদক বরাবর সি ব্লকের ২ নম্বর দোকান ঘরের পজিশন বুঝিয়ে নেয়ার জন্য দেয়া আবেদনের ভিত্তিতে জানা যায়, তাইনুসের কাছ থেকে ইমাম হোসেন এককালিন দোকানের পজিশন ক্রয় করে এবং ৪ বছরের জন্য বিনা ভাড়ায় ঘর ব্যবহারের অনুমতি দেয় তাইনুসকে। কিন্তু ৪ বছর মেয়াদ শেষে দোকান ঘরের পজিশন বুঝে নেয়ার জন্য যোগাযোগ করলে তাইনুস টালবাহানা শুরু করে। আবেদনে দোকান ঘরের পজিশন বুঝে দেয়ার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধও জানায় ইমাম হোসেন।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *