Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার \ চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিল্পাঞ্চল বুলনপুর-আতাহার এলাকা থেকে অবৈধ মদের ভাটি অপসারণের দাবি করেছেন এলাকাবাসী ও শিল্পাঞ্চলের বিশিষ্ট ব্যবসায়ীরা। জানা গেছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহর থেকে ৪ কিলোমিটার দূরে বুলনপুর নামক এলাকায় জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার রহনপুর পুরাতন বাজারের মনতোষ কুমার চক্রবর্তী মুদি দোকান করার জন্য জেলা পরিষদ থেকে ৮/১০ ফুটের একটি ঘর লিজ নেয়। কিন্তু সে মুদির দোকান না করে সেখানে অবৈধভাবে মদের ভাটি তৈরি করে এবং মাদক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলে। মদের ব্যবসা ও সেবনকারীদের সহায়তা করায় এলাকার শিল্প কল কারখানার মালিকের পড়তে হয় বেকায়দায়। ফলে আতাহার এলাকার পরিবেশ ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। আর মাদক সেবীদের মাতলামীর কারণে এলাকায় গড়ে উঠা আবাসিক, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রী, পথচারী ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ীরা চরম আতংকগ্রস্থ ও বিব্রতকর অবস্থায় পড়েন। অনেক সময় মাদক সেবীদের হাতে লাঞ্ছিত হতে হয় ছাত্র-ছাত্রী, সাধারণ শ্রমিক-কর্মকর্তা-কর্মচারী, পথচারি ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ীদেরকে। এব্যাপারে এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলেন, দীর্ঘদিন থেকেই এলাকা থেকে অবৈধ মদের আড্ডা বন্ধের জন্য এলাকাবাসী ও ব্যবসায়ীরা জেলার উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে আবেদন জানিয়ে আসছেন। এদিকে ২০০৫ সালে অবৈধ মদের ভাটি উচ্ছেদের আবেদনের প্রেক্ষিতে সদর মডেল থানায় একটি জিডি হয়। যার নম্বর ১৯৫, তারিখ ০৪-০৪-২০০৫। জিডিতে মনতোষ সেখানে কোন মদের ব্যবসা বা দোকান চালানো হয় না এবং ভবিষ্যতে কোন বেআইনী কাজ তাঁর দ্বারা হবে না বলে অঙ্গীকার করে। কিন্তু দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও সে অদ্যবধি সেখানে বাড়ির এবং দোকানের নামে অবাধে মদের ব্যবসা পরিচালনা কর আসছে এবং এলাকার পরিবেশ নষ্ট করছে। সেখানে মদ পান করতে যাওয়া লোকজন অনেক সময়ই অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটিয়ে থাকে বলেও এলাকার ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করেন। এলাকাবাসী আরো বলেন, জেলা পরিষদের দেয়া লিজকৃত অস্থায়ী দোকান ঘর জেলা পরিষদের জেঃ পঃ/নবাব/সাধাঃ/২০০৫/১১২ নম্বর স্মরকে ২০০৫ সালের ২০ মার্চ জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ হাফিজুর রহমানের স্বাক্ষরে লীজটি বাতিল করা হয় এবং এই চিঠিতে মদের ভাটি দ্রুত অপসারণ করতে বলা হয়। পরবর্তীতে সে মদের ভাটি পার্শ্ববর্তী স্থানে কয়েক শতক জমি কিনে বাড়ি নির্মান করে। সেখানে অবাধে অবৈধভাবে মদের ব্যবসা করতে থাকে এবং ওই স্থানে আরও স্থায়ীভাবে ব্যবসার পসার গড়ে তোলে। সেখানে চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরসহ জেলার বিভিন্নস্থানের মাদক সেবীরা মাদক সেবন করতে আসে এবং অবাধে মনোরঞ্জন করে যায়। কিন্তু এভাবে সে অদ্যবধি মাদক ব্যবসা চালিয়ে আসলেও তাঁর বিরুদ্ধে কোন কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। ফলে শিল্পাঞ্চল এলাকার পরিবেশ দিন দিন খারাপ হয়ে যাচ্ছে। জেলা থেকে মাদককে নির্মূল করার জন্য আন্তরিকতার সাথে কাজ করে চলেছে প্রশাসন। এরই অংশ হিসেবে ওই স্থান থেকে ২২ সেপ্টেম্বর অভিযান চালিয়ে মদের ভাটির মালিক মনতোষসহ ১৬জনকে আটক করে। আটককৃতদের আদালতে পাঠানো হয়। অবৈধ মদের ভাটি উচ্ছেদ এবং এলাকাবাসী ও শিল্পাঞ্চলের ব্যবসায়ীদের সমস্যার বিষয়ে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ সাবের রেজা আহমেদ এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, সদর উপজেলার আতাহার বুলনপুর শিল্প এলাকায় অবৈধ মদের ভাটির বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। এলাকার বাণিজ্যিক ও সামাজিক পরিবেশ স্বাভাবিক রাখতে ওই এলাকা থেকে মদের ভাটি সমূলে অপসারণ করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জোর দাবী জানিয়েছেন এলাকার বিশিষ্ট ব্যবসায়ীরা ও সাধারণ মানুষ।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *