Sharing is caring!

SAM_4287  SAM_4280স্টাফ রিপোর্টার \ সারাদেশের সাথে প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৪ পৌরসভাতেও নির্বাচনী ভোট গ্রহন শুরু হয় সকাল ৮টায়। শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হয় বিকেল ৪টায়। উৎসবমূখর পরিবেশে ভোট প্রদান করেছেন ভোটাররা। তবে জেলার ৪ পৌসভায় ভোট গ্রহণকালে কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। কড়া নিরাপত্তা ও উৎসবমূখর এবং শান্তিপূর্ণ পরিবেশে চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৪ পৌরসভা-চাঁপাইনবাবগঞ্জ, শিবগঞ্জ, নাচোল ও রহনপুর পৌরসভার ৮৯টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। নারী ও পুরুষ ভোটারকে ভোট কেন্দ্রে লাইনে দাড়িয়ে ভোট প্রদান করতে দেখা যায়। পুরুষের চেয়ে মহিলা ভোটারদের উপস্থিতি ছিল বেশী। চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভায় আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী সামিউল হক লিটন সকাল সোয়া ৯ টায় শহরের জেলা স্কুল ও বিএনপি মনোনীত প্রার্থী অধ্যাপক আতাউর রহমান সকাল সাড়ে ৮ টায় রেহাইচর উচ্চ বালিকা প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট প্রদান করেন। এছাড়া SAM_4298অন্যান্য মেয়র, কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর প্রার্থীগণ তাদের ভোট প্রদান করেন সকালে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় এবারের নির্বাচনে জেলার ৪টি পৌরসভার ৮৯টি ভোট কেন্দ্রের মাধ্যমে ১ লক্ষ ৮৯ হাজার ৭৮১ জন ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করছেন। নির্বাচনে মেয়র পদে ২০ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৯২ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৫৯ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করেছেন। এর মধ্যে কেন্দ্র রয়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভায় ৫৭টি, শিবগঞ্জে ১১টি, রহনপুরে ১১টি এবং নাচোল পৌরসভায় ১০টি। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আইন শৃক্সখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে জেলার ৪ পৌরসভায় র‌্যাবের ৪ টি ভ্রাম্যমান টিম এবং বিজিবি’র ৪ প্লার্টুন ফোর্স নির্বাচনী এলাকায় টহলরত ছিল। নির্বাচনে ৪ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট এবং ১৮ জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া ভোট গ্রহনের কাজে দায়িত্ব পালন করেছেন ৮৯ জন প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ৫৩৪ SAM_4273জন এবং পোলিং অফিসার ১ হাজার ৬৮ জন। প্রতিটি কেন্দ্রে ৬ জন অস্ত্রধারী পুলিশ, ২ জন অস্ত্রধারী আনসারসহ মোট ১৪ জন আনসার আইনশৃক্সখলা নিয়ন্ত্রণে কাজ করেছেন। উল্লেখ্য, চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভায় ১৫টি ওয়ার্ডে ১ লাখ ২৫ হাজার ৩২৫ জন সাধারণ ভোটার। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৬১ হাজার ৩০৬ জন ও মহিলা ভোটার ৬৪ হাজার ১৯ জন। শিবগঞ্জ পৌরসভায় ৯টি ওয়ার্ডে ভোটার সংখ্যা ২৮ হাজার ৭’শ ৭২ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৪ হাজার ৬’শ ৬৩ জন এবং মহিলা ভোটার ১৪ হাজার ১’শ ০৯ জন। নাচোল পৌরসভায় মোট ভোটার সংখ্যা ১২ হাজার ৩৪৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার সংখ্যা ৬ হাজার ৭৮ এবং মহিলা ভোটার সংখ্যা ৬ হাজার ২৬৭ জন। রহনপুর পৌরসভায় ভোটার ৯টি ওয়ার্ডে ২৩ হাজার ৩৮৯ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১১ হাজার ৫২১ জন ও মহিলা ভোটার ১১ হাজার ৮৬৮ জন। চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করেন মোট ৬ জন। এরা হলেন আওয়ামীলীগের সামিউল হক লিটন, বিএনপি’র অধ্যাপক আতাউর রহমান, বিএনপি’র বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) বর্তমান মেয়র মাওলানা আব্দুল মতিন, জাসদের মনিরুজ্জামান মনির, জামায়াতের জেলা আমির নজরুল ইসলাম (স্বতন্ত্র) ও জাতীয় পার্টির শাহজাহান আলী। শিবগঞ্জ পৌরসভা SAM_4292নির্বাচনে মেয়র পদে ৪ জনের মধ্যে আওয়ামীলীগের ময়েন খান, বিএনপি’র সফিকুল ইসলাম, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী কারীবুল হক রাজিন (স্বতন্ত্র), জামায়াত নেতা জাফর আলী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী হিসেবে প্রতিন্দ্বিতা  করেন। নাচোল পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে ৭ জনের মধ্যে আওয়ামীলীগের আব্দুর রশিদ খান ঝালু, বিএনপি’র মোঃ কামরুজ্জামান, আমানুল্লাহ আল মাসুদ (স্বতন্ত্র), তৌহিদুল ইসলাম শাহিন (জাপা), বর্তমান মেয়র জাতীয় পার্টির নেতা আব্দুল মালেক চৌধুরী মিঠু (স্বতন্ত্র) ও জামায়াত নেতা ডা. রফিকুল ইসলাম (স্বতন্ত্র) ও আসলাম হোসেন (স্বতন্ত্র)  প্রতিন্দ্বিতা  করেন। রহনপুর পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে ৩ জনের মধ্যে, আওয়ামীলীগের গোলাম রাব্বানী বিশ্বাস, বিএনপি’র তারেক আহম্মেদ, জামায়াত নেতা মিজানুর রহমান (স্বতন্ত্র) প্রার্থী রহনপুর পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিন্দ্বিতা  করেন। জেলায় ৮৯ টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ৩১টি ভোটকেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ন বলে চিহ্নিত করা হলেও কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। বুধবার ভোটের মাধ্যমে ১ লাখ ৮৯ হাজার ৮’শ ২১ জন ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করে তাদের নিজ নিজ পৌরসভার মেয়র, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সলর ও সাধারণ কাউন্সিলর নির্বাচিত করেন। চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভায় ভোট প্রদান করেছেন প্রায় ৭০% ভোটার। শিবগঞ্জ পৌরসভায় ভোট প্রদান করেছেন আনুমানিক ৮৪% ভোটার। এছাড়া নাচোল ও রহনপুর পৌরসভায় ভোট প্রদান করেছেন আনুমানিক ৭০ থেকে ৭৫ % ভোটার। এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ভোট গণনা কার্যক্রম চলছিল।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *