Sharing is caring!


চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি \ চাঁপাইনবাবগঞ্জে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন জামায়েতুল মুজাহেদিন বাংলাদেশের (জেএমবি) সদস্য সেলিম ওরফে হারুন মিস্ত্রী (৩৪)কে অস্ত্র আইনে যাবজ্জীবন কারাদন্ডে দন্ডিত করেছেন আদালত। সোমবার দুপুরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ ষ্পেশাল ট্রাইবুনাল-২ এর বিচারক ও অতিরিক্ত দায়রা জজ মো. জিয়াউর রহমান আসামীর উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষণা করেন। দন্ডিত সেলিম চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার জহুরাপুর বকরীপাড়া গ্রামের দুরুল হুদার ছেলে। মামলার বিবরণ সুত্রে ও সরকারী কৌসুলী এ্যাড. জবদুল হক জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ২০০৯ সালের ৭ জুলাই দুপুর ১টায় বকরিপাড়ায় বিজিবি’র সহায়তায় জেএমবি সদস্য সেলিমের বাড়ি ঘেরাও করে র‌্যাব। এ সময় তিনি যৌথ বাহিনীকে লক্ষ্য করে ৩ রাউন্ড ও বিজিবি জওয়ান তাঁকে লক্ষ্য করে ৫ রাউন্ড গুলি বর্ষণ করেন। পরে দেহ তল্লাশী করে কোমরে গোঁজা ১টি বিদেশী পিস্তল, ২টি ম্যাগজিন ও ৯ রাউন্ড গুলিসহ সেলিমকে গ্রেফতার করা হয়। এঘটনায় পরদিন ৮ জুলাই চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর থানায় র‌্যাব-৫ ব্যাটালিয়ন রাজশাহী’র উপপরিদর্শক (এসআই) আনোয়ার হোসেন বাদী হয়ে অস্ত্র আইনের ১৯(এ) ধারায় মামলা দায়ের করেন। (মামলা নং-১৪, বিশেষ ক্ষমতা নং- ১০৩/২০০৯, জিআর নং-২১০/২০০৯)। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাহীন আকন্দ ২০০৯ সালের ৬ আগষ্ট আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন। ১৪ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ ও দীর্ঘ শুনানী শেষে বিজ্ঞ আদালত সোমবার দুপুরে আসামীকে যাবজ্জীবন কারাদন্ডে দন্ডিত করে রায় প্রদান করেন। সরকারী কৌসুলী জবদুল হক আরও জানান, সক্রিয় জেএমবি সদস্য সেলিম আরেকটি অস্ত্র মামলায় ইতিমধ্যে দন্ডপ্রাপ্ত হয়েছেন। এছাড়া তাঁর বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে সন্ত্রাস বিরোধী আইনের একটি মামলা বিজ্ঞ দায়রা আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। সেলিম ওরফে হারুন মিস্ত্রী’র পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন আ্যাড. আব্দুল ওদুদ।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *