Sharing is caring!


মোহাঃ ইমরান আলী \ জেলা প্রশাসনের বেঁধে দেয়া আম পাড়ার সময়সীমা আজ বৃহষ্পতিবার শেষ হয়েছে। আর এই সময়সীমা শেষ হওয়ায় আম চাষি, ব্যবসায়ী ও বাগান মালিকদের আম পাড়া উৎসব শুরু হচ্ছে। জেলা প্রতিটি আম বাজারে বাজারজাত শুরু হবে মৌসুমী এই ফল আম। আমের রাজধানী চাঁপাইনবাবগঞ্জে এরই মধ্যে চাষি, ব্যবসায়ী ও বাগান মালিকদের আম পাড়ার সকল প্রস্তুতি নিয়েছেন। পাশাপাশি আম আড়ৎদাররাও তাদের আড়ৎ ঘর মেরামত করতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। এদিকে আন্তর্জাতিক খ্যাত কানসাট আম বাজারে আম না আসার আগেই থেকে শুরু হয়েছে চাঁপাই-সোনামসজিদ মহাসড়কে যানজট। এই যানজটের কারণে সাধারণ পথচারি থেকে শুরু হয়ে সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারি, স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসা শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা চরম বিপদের মধ্যে পড়তে শুরু করেছেন। যানজটের কারণে সময়মত অফিস-আদালত ও স্কুল-মাদ্রাসা ও কলেজে পৌঁছাতে পারছেন না। পথচারিরা বলেছেন, বাজারে আম আসার আগেই যদি এমন যানজট শুরু হয়, তাহলে বাজারে আম আসলে কি পরিমাণ যানজট লাগবে তা বলা কঠিন। এব্যাপারে কানসাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ বেনাউল ইসলাম বলেন, গত ৪ মে অনুষ্ঠিত জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে সিদ্ধান্ত মোতাবেক আম ক্যালেন্ডারের সময়সীমা আজ বৃহষ্পতিবার শেষ হয়েছে। সময়সীমা শেষ হওয়ার সাথে সাথে সকল আম চাষি-ব্যবসায়ী ও বাগান মালিকরা আম পাড়ার প্রস্তুত নিয়েছে। এছাড়া আম বাজারে যানজটও শুরু হয়েছে। জেলা প্রশাসনে সিদ্ধান্তগুলো আজ বাস্তবায়ন হবে বলে আশা করি। আম বাজারে ট্রাফিক পুলিশ থাকলে এই যানজট নিরসন হবে বলে আশা করছি। অন্যদিকে শিবগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ হাবিবুল ইসলাম হাবিব জানান, মহাসড়কে যানজট নিরসনের জন্য ট্রাফিক পুলিশ কাজ করবে। পাশাপাশি থানা পুলিশ আম বাজারের সার্বিক বিষয় দেখা শোনা করবে। বিশেষ করে আম বাজারে মাদক-অস্ত্র চোরাচালান না হয় সেজন্য পুলিশের বিশেষ দল টহলরত থাকবে। এদিকে শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার শফিকুল ইসলাম, আজ বৃহষ্পতিবার আম পাড়ার বেঁধে দেয়া সময়সীমা শেষ হচ্ছে এবং বৃহষ্পতিবার থেকেই গোলাপভোগ আম পাড়া শুরু হবে। কানসাট আম বাজারের কারণে মহাসড়কে যানজট বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, যানজট নিরসনের জন্য জেলা প্রশাসকের সাথে মিটিং করা হবে এবং খুব শীঘ্রই যানজট নিরসনের দৃশ্যমান দেখতে পাবেন বলে জানান। উল্লেখ্য, গত ৪ মে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এক সভায় এই ক্যালেন্ডার প্রকাশ করেন জেলা প্রশাসন। এই ক্যালেন্ডারে উল্লেখ্য করা হয়েছিল ২৫ মে গোপালভোগ, সকল প্রকার গুটি আম ২০ মে, হিমসাগর ও ক্ষিরসাপাতা ২৮ মে, লক্ষণভোগ ১ জুন, ল্যাংড়া ও বোম্বায় ৫ জুন, ফজলী ও সুরমা ফজলী ১৫ জুন, আ¤্রপালি ১৫ জুন, আশ্বিনা ১ জুলাই বাজারজাতকরণের সময় বেঁধে দেয়া হয়। এ আদেশ অমান্য করে কোন চাষী আম বাজারজাত করলে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে শাস্তির বিষয়ও বলা হয় সভায়। কিন্তু আম চাষি-ব্যবসায়ী ও বাগান মালিকরা প্রশাসনের দেয়া সময়সীমা মেনে নেন। আর এরই মধ্যে আজ বৃহষ্পতিবার আম পাড়ার সময়সীমা শেষ হয়েছে এবং আজ থেকে গোপালভোগ আম পাড়া শুরু হবে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *