Sharing is caring!

চাঁপাইনবাবগঞ্জে আমন সংগ্রহ বিষয়ে কর্মকর্তাদের সাথে খাদ্যমন্ত্রীর মতবিনিময়

♦ স্টাফ রিপোর্টার 

জেলায় সরকারীভাবে আমন ধান সংগ্রহ বিষয়ে কর্মকর্তাদের সাথে খাদ্যমন্ত্রীর মতবিনিময় সভা হয়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জে। শনিবার চাঁপাইনবাবগঞ্জে খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার পৌছলে সার্কিট হাউসে গার্ড অফ অনার দেয়া হয়। শনিবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলার আমন চাষী, ধান ব্যবসায়ী ও জেলার কর্মকর্তাদের সাথে জেলার আমন ধান সংগ্রহে বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে আলোচনা করেন মন্ত্রী। এসময় উপস্থিত ছিলেন অতিথি ছিলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ (শিবগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য ফেরদৌসী ইসলাম জেসী, জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক, পুলিশ সুপার এ এইচ এম আবদুর রকিব বিপিএম-পিপিএম (বার), জেলা খাদ্য কর্মকর্তা, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব রুহুল আমিন, সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল ওদুদ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ চেম্বারের সভাপতি ও জেলার শীর্ষ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ‘এরফান গ্রæপ’র চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক, ‘দৈনিক চাঁপাই দর্পণ’ এর প্রধান উপদেষ্টা আলহাজ্ব মো. এরফান আলী, জেলা ও উপজেলা আওয়ামীলীগের বিভিন্নস্তরের নেতৃবৃন্দ, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। খাদ্য মন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, কৃষকের ধান ক্রয়ে কোন দূর্নীতি সহ্য করা হবে না। কৃষক যাতে ধানের নায্য মূল্য পায় তা নিশ্চিত করতে এবং কোন মধ্যস্বত্ত¡ভোগী যাতে সুযোগ গ্রহণ করতে না পারে সে বিষয়ে কঠোর থাকতে হবে, মধ্যস্বত্ত¡ভোগীর সাথে খাদ্য বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সম্পর্ক স্থাপন থেকে বিরত থাকতে হবে। সরকারী কর্মকর্তা-কর্মবচারীদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আপনাদের পর্যাপ্ত বেতন বৃদ্ধি করেছেন। সুতারং অর্থের জন্য অন্য কোন জায়গায় হাত পাততে হবে না। তাই আপনারা দূর্নীতি মুক্ত হয়ে দেশের মানুষের জন্য কাজ করবেন। খাদ্যে সয়ং সম্পূর্নতা বিষয়ে তিনি বলেন, আগে বিদেশ থেকে চাল আনতে হতো, এখন আমরা খাদ্যে সয়ং সম্পূর্নতা অর্জন করেছি। এখন দেশে উৎপাদন হওয়া উদ্বৃত্ত খাদ্য বিদেশে রপ্তানি করার চেষ্টা করছি। কৃষক যাতে ধানের মূল্য পায়, সেজন্য অন্যান্য যে কোন সময়ের চেয়ে চড়া মূল্য দিয়ে ধান কেনা হচ্ছে। কৃষকের নিকট থেকে লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী আগামী ২৮ ফেব্রæয়ারীর আগেই ধান ক্রয় শেষ করতে পারবো। এরপর তিনি জেলা খাদ্য গুদাম পরিদর্শন ও পৌর এলাকার হারিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৫০ বছরপূর্তী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন। বিকেলে তিনি জেলার গোমস্তাপুর উপজেলায় একটি ঘৌড়দোড় প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগদান শেষে সফরসূচী শেষ করেন।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *