Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার \ শিবগঞ্জ উপজেলার শ্যামপুরে পাগলা কুকুরের কামড়ে শিশুসহ ৪ জন আহত হয়েছে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে। আহতরা হলো, উপজেলার শ্যামপুর ইউনিয়নের চামা ভান্ডার গ্রামের মজিবুর রহমানের ছেলে বাবু (৩), রবিউল ইসলামের ছেলে কামরুল ইসলাম (১৫), মৃত রমজান আলীর ছেলে জালালউদ্দিন (৬০) ও ভান্ডার গ্রামের জাকারিয়ার ছেলে ইদুল (২৬)। কুকুর নিধন বন্ধ আইন কঠোরভাবে বাস্তবায়নের পর থেকে সমগ্র চাঁপাইনবাবগঞ্জে আশংকাজনকহারে বেড়ে গেছে মালিকবিহীন কুকুরের পরিমান ও তাদের উৎপাৎ। পথচারীরা প্রায়ই বিপদে ও বিব্রতকর অবস্থায় পড়ছে কুকুরের কারণে। বেশী আক্রান্ত হচ্ছে নারী ও বিদ্যালয়গামী ছোট্র শিশুরা। অনেকেই রাস্তা পরিবর্তন করে চলতে বাধ্য হচ্ছে এ কারনে। প্রতিটি মোড়ে মোড়েই দলবাধা কুকুরের আস্তানা। প্রায় সময়ই হিংস্র আচরণ করে তারা। এমনকি চলন্ত যানবাহনের পিছেও ছুটতেও পিছপা হয়না এসব কুকুর। এ অবস্থা থেকে পরিত্রানের কোন কার্যকর উদ্যোগ নেয়া প্রয়োজন বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। মাতৃ কুকুরদের জন্মনিরোধক ইনজেকশন দিয়েও কমছেনা কুকুরের পাল। চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা সুত্র জানায়, আইনের বাধ্যবাধকতা ও তহবিলের অভাবে অধিক কার্যকর কোন উপায় তারা গ্রহন করতে পারছেন না। বৃহস্পতিবার শিবগঞ্জ উপজেলার শ্যামপুরে পাগলা কুকুরের কামড়ে শিশুসহ ৪ জন আহত হয়েছে। আহতদের পরিবার ও এলাকাবাসী  সূত্রে জানা গেছে, বিকেলে বাড়ি থেকে শ্যামপুর বাজার যাওয়ার পথে চামা বাজার নামক স্থানে পাগলা কুকুরের ধাওয়ায় দৌড়ে পালানোর সময় পাগলা কুকুর তাদের কামড় দেয়। এসময় ৪ জন গুরুত্বর আহত হয়। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরে চারজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা আধুনিক সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *