Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার \ চাঁপাইনবাবগঞ্জে চাঞ্চল্যকর রুবেল হত্যা মামলায় ঘাতক আব্দুল মালেক নামে এক একজনের মৃত্যুদন্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। চাঁপাইবাবগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ জিয়াউর রহমান আসামীর উপস্থিতিতে সোমবার দুপুরে এ রায় প্রদান করেন। দন্ডাদেশপ্রাপ্ত ব্যক্তি হচ্ছে, জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার কান্তিনগর কালীচক গ্রামের মাহতাব উদ্দীনের ছেলে আব্দুল মালেক (২৩)। এছাড়া মামলায় অভিযুক্ত মালেককে আরও ৭ বছর সশ্রম কারাদন্ড, ৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৩ মাস বিনাশ্রম কারাদন্ডে দন্ডিত করেছেন বিচারক। মামলার বিবরণ ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর আঞ্জুমানয়ারা বেগম জানান, কান্তিনগর গ্রামের মোঃ রুবেল তার বন্ধু আব্দুল মালেককে ১৮ হাজার টাকা ধার দেয়। পরবর্তিতে কয়েকবার পাওনা টাকা চাইলেও সে টাকা পরিশোধ করেনা। ২০০৯ সালের ৪ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে মালেক রুবেলকে বাড়ি থেকে ডেকে পার্শ্ববর্তী চোহান বিলে নিয়ে যায়। কিছু বুঝে উঠার আগেই সেখানে পিছন দিক থেকে হাসুয়া দিয়ে কুপিয়ে রুবেলকে হত্যা করে। পরে রুবেলের লাশ আখ ক্ষেতে পুঁতে রাখে। ১ মাস ২ দিন পর সে লাশের অবশিষ্ট অংশ চটের ব্যাগে ভরে ওই স্থান থেকে সরিয়ে নিকটের চোহান ব্রিজের নীচে খালের পানিতে ডুবিয়ে রাখে। ঘটনার রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা চালায় পুলিশ। অবশেষে ১০ অক্টোবর নিহতের পরিবার, ইউপি চেয়ারম্যানসহ অনান্যরা মালেককে নিজ বাড়িতে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে রুবেলকে হত্যার কথা স্বীকার করে। পুলিশ নিহত রুবেলের গলিত লাশ উদ্ধার করে ও ঘাতক মালেককে গ্রেফতার করে। এ ঘটনায় নিহত রুবেলের পিতা ২০০৯ সালের ১০ অক্টোবর শিবগঞ্জ থানায় মালেকের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করে। (মামলা নং-১৯ তাং ১০/১০/১৭, সেশন-৯০/২০১০.জিআর নং-৪১৪/২০০৯)। শিবগঞ্জ থানার তদন্ত কর্মকর্তা এস.আই জামাল উদ্দীন ২০১০ সালের ৩১ জানুয়ারী আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। ১৭ জন স্বাক্ষীর দীর্ঘ শুনানী শেষে আদালত এ রায় প্রদান করেন।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *