Sharing is caring!

fgচাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি \ চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা ইউনিয়নের চকঝড়– গ্রামে পারিবারিক কলহের জের ধরে নিজ ছেলে সোহেল রানার হাতে খুন হয়েছে পিতা। নিহত ব্যক্তি হচ্ছে, চকঝড়– গ্রামের মৃত নজরুল ইসলামের ছেলে একরামুল হক (৫৫)। স্থানীয় ও পুলিশ সুত্র জানায় কিছুদিন পূর্বে সোহেলের মা’কে পারিবারিক কলহের জের ধরে তালাক দেয় একরামুল হক। এরই জের ধরে ছেলের সাথে পিতার দ্ব›দ্ব সৃষ্টি হয়। হঠাৎ করেই একরামুলকে খুজে পাওয়া যাচ্ছিল না। একরামুলের ভাই ও আত্মীয় স্বজনরা খোঁজাখুজির করছিল। বুধবার রাতে ঘাতক সোহেল রানা তার চাচাকে বলে, তার বাবাকে সে হত্যার পর তার লাশ তাদেরই গোয়াল ঘরের ভেতর পুঁতে রাখা হয়েছে। এঘটনায় এলাকায় তোলপাড় শুরু হয়। স্থানীয়রা গোয়াল ঘরে একরামুলের লাশের সন্ধান পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। রাতেই পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। তবে, বৃহস্পতিবার সকালে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের উপস্থিতিতে একরামুলের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘাতক সোহেল রানা পলাতক রয়েছে। জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ মুসা জানান, জেলা প্রশাসকের কাছ থেকে দায়িত্বপ্রাপ্ত হয়ে সদর উপজেলার চকঝড়– গ্রামের একটি গোয়াল ঘর থেকে প্রায় ১৫ দিন পূর্বে হত্যার করে পুঁতে রাখা একটি লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। লাশের গলায় কাটা দাগ রয়েছে। ময়না তদন্ত রিপোর্ট পাওয়া গেলে সঠিক তথ্য পাওয়া যাবে। এব্যাপারে সদর মডেল থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই মাহবুবুর রহমান জানান, নিহত একরামুল হকের নিজ ছেলে সোহেল রানা তার পিতাকে প্রায় ১৫দিন আগে হত্যা করে লাশ গোয়াল ঘরে পুঁতে রাখে। সোহেল মোবাইল ফোনে তার চাচাকে বিষয়টি জানালেঘটনার জানাজানি হয়। পুলিশ বৃহস্পতিবার দুপুরে তাদের গোয়াল ঘর থেকে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের উপস্থিতিতে লাশ উত্তোলন করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *