Sharing is caring!

CIMG2566চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি \ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা থেকে সম্প্রতি যাচায়-বাছাইয়ের মাধ্যমে বেশকিছু মুক্তিযোদ্ধাদের স্থগিত হওয়া ভাতা পুণরায় চালু করার ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ড। বুধবার দুপুরে স্থানীয় শহীদ সাটু হলে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডার সিরাজুল হক। সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী ভাতা স্থগিতকৃত সকল মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা পুনরায় চালুর জন্য মুক্তিযুদ্ধের ¯^পক্ষে প্রমান হিসেবে সনদ, গেজেট, মুক্তিবার্তা, ভারতীয় তালিকা এবং জন্ম তারিখের প্রমান হিসেবে এস.এস.সি সার্টিফিকেট বা এনআইডি পাঠানোর জন্য বলা হয়েছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জের মোট ৩২ জনের মধ্যে ২৯ জনেরই এসব কাগজপত্রে ক্রুটি রয়েছে। অজ্ঞাত কারণে এসব ভূয়া মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকাভুক্ত করা হয়েছিল। এসব ভূয়া মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা চালুর জন্য জেলার মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্য থেকেই আবারও ষড়যন্ত্র করছে। তাই এসব ষড়যন্ত্রকারীদের চিহ্নিত করে এসব ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা থেকে বাদ দেয়ার আহবান জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে। সংবাদ সম্মেলনে আরও বলা হয়, জেলার সম্মাণী ভাতাভোগী মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা থেকে সাম্প্রতিক যাচাই-বাছাইয়ে সদর উপজেলা ইউনিট কমান্ডার খাইরুল ইসলামসহ ৩২ জন মুক্তিযোদ্ধার ভাতা যথাযথ কাগজপত্র না থাকায় ও মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়ের নিয়মানুযায়ী স্থগিত করা হয়েছে। কিন্তু বন্ধ হওয়া ভাতা পুণরায় চালুর জন্য গত ৩ মার্চ সদর উপজেলা পরিষদে মানববন্ধন করেছে ঐ সকল ভূয়া মুক্তিযোদ্ধারা। তারা আমরণ অনশনসহ বৃহত্তর আন্দোলনেরও হুমকি দিয়েছে। তাদের কর্মকান্ডের প্রকৃত চিত্র তুলে ধরা ও এই ঘৃন্য ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদেই সংবাদ সম্মেলনটি আয়োজন করেছে জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ড। অজ্ঞাত কারণে এসব ভূয়া মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকাভুক্ত করা হয়েছিল বলেও সংবাদ সম্মেলনে দাবী করা হয়। এসময় বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া কর্মীগণ, জেলা ডেপুটি কমান্ডার তাজুল ইসলাম, সাবেক থানা কমান্ডার আব্দুর রহমান, থানা ডেপুটি কমান্ডার জয়নাল আবেদিন, ডিপুটি কমান্ডার সাংগঠনিক তরিকুল ইসলামসহ জেলার বিভিন্নস্থানের মুক্তিযোদ্ধাগণ।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *