Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার \ দীর্ঘদিন থেকে শান্ত থাকা চরাঞ্চলের অশান্ত এলাকা চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার সুন্দরপুর ইউনিয়নের চরবাগডাঙ্গা এলাকায় জমিজমাকে কেন্দ্র করে ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই গ্রুপে ব্যাপক বোমাবাজিতে ১ জন নিহত ও ২জন আহত হয়েছে। নিহত ব্যক্তি, সদর উপজেলার সুন্দরপুর ইউনিয়নের বাগডাঙ্গার নৈমুদ্দীনের ছেলের আইয়ুব আলী  (৫৬)। শুক্রবার দিবাগত রাত সাড়ে ১০ টার দিকে প্রায় ২৫/৩০টি ককটেল বোমার বিষ্ফোরণ ঘটে এবং শনিবার ভোররাতে (একইরাতে) আবারও অনন্তঃ ২০টির মত ককটেল বোমা বিষ্ফারণ হয়। উভয় পক্ষের সংঘর্ষের সময় সদর উপজেলার সুন্দরপুর ইউনিয়নের বাগডাঙ্গায় একজন নিহত হয়েছেন। এঘটনায় আহত হয়েছেন আরো ২ জন। শনিবার সকাল ৬ টার দিকে হতাহতের এই ঘটনা ঘটে। আহত ব্যক্তি ওই এলাকার এলাকার মোজাম্মেলের ছেলে আরিফ ও একই ইউনিয়নের গড়াইপাড়া গ্রামের আনিসুর রহমানের ছেলে জলিল (২২)। বোমায় ডান হাতের কব্জি বিছিন্ন আহত আরিফকে আশংকাজনক অবস্থায় রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ও  জলিলকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহত আইয়ুব আলী বাবু মাষ্টার গ্রুপের সমর্থক বলে স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, শুক্রবার রাত থেকেই আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে স্থানীয় আলম ও বাবু মাষ্টার গ্রুপের মধ্যে পাল্টাপাল্টি বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এরই জের ধরে সকালে আইয়ুব আলীসহ আরো কয়েকজন স্থানীয় মাদ্রাসা হাটে চায়ের স্টলে গেলে তাদের লক্ষ্যে করে বোমা হামলা করে প্রতিপক্ষের লোকজন। এতে গুরুতর আহত অবস্থায় আইয়ুব আলীকে পুলিশ উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে পাঠায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করে। সদ্য যোগদানকৃত সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মনজুর রহমান জানান, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে (জমি নিয়ে বিরোধ সৃষ্টি হওয়ায়) দীর্ঘদিন ধরেই ওই এলাকায় আলম ও বাবু মাস্টার গ্রæপের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। এনিয়ে এর আগেও একাধিক সংঘর্ষে হতাহতের ঘটনা ঘটেছিল। এঘটনায় গুরুতর আহত অবস্থায় আইয়ুব আলীকে পুলিশ উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে পাঠায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করে। এছাড়া আহত ২জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এঘটনায় আইয়ুব আলীর ভাই শাহজাহান ৪০ জনকে নামীয় ও অজ্ঞাতনামা অনেকজনকে আসামী করে সদর থানায় হত্যা মামলা করেছেন। একই ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে বিস্ফোরক আইনে উভয় পক্ষের ১৪ জনকে নামীয় ও অজ্ঞাত ২০ জনকে আসামী করে মামলা করেছেন। তবে শনিবার বিকেল পর্যন্ত এঘটনায় কেউ গ্রেফতার হয়নি। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *