Sharing is caring!

চাঁপাইনবাবগঞ্জে দূর্ণীতি প্রতিরোধ

দিবসে মানববন্ধন ও সমাবেশ

♦ স্টাফ রিপোর্টার

‘টেকসই উন্নয়ন, গণতন্ত্র, শান্তি ও সুশাসন: দূর্ণীতির বিরুদ্ধে একসাথে” এ শ্লোগানে আন্তর্জাতিক দূর্ণীতি প্রতিরোধ দিবস উপলক্ষে মানববন্ধন ও সমাবেশ হয়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জে। রবিবার সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে এই মানববন্ধন ও সমাবেশ হয়। সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক এ.জেড.এম নূরুল হক। জেলা প্রশাসন, জেলা দূর্ণীতি প্রতিরোধ কমিটি ও সচেতন নাগরিক কমিটির যৌথ উদ্যোগে সমাবেশে জেলা দূর্ণীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব ড. সিরাজ উদ্দিনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, সাধারণ সম্পাদক মসিউল করিম বাবু, সিভিল সার্জন ডা. খায়রুল আতাতুর্ক, সচেতন নাগরিক কমিটির সভাপতি এ্যাড. সাইফুল ইসলাম রেজা, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মোখলেশুর রহমান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আলমগীরসহ অন্যরা। উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এ.কে.এম তাজকির-উজ-জামান, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল লতিফ, জেলার বিভিন্ন সরকারী দপ্তরের প্রধানগণ, বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও সমাজসেবীরা। জেলা প্রশাসক বলেন, দুর্নীতি উন্নয়নের পথে প্রধান বাধা। দুর্নীতিকে সহনীয় মাত্রায় কমাতে পারলে উন্নয়নের অগ্রযাত্রা ত্বরান্বত হবে। মানববন্ধন শেষে দুর্নীতিবিরোধী স্বাক্ষর সংগ্রহ অভিযান পরিচালিত হয়। অন্যদিকে, দিবসটি উপলক্ষে সনাকের উদ্যোগে এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজের সহযোগিতায় উক্ত কলেজ অডিটোরিয়ামে শিক্ষার্থীদের মাঝে দুর্নীতিবিরোধী কুইজ প্রতিযোগিতা, আলোচনা সভা, পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সনাক সভাপতি জনাব সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উক্ত কলেজের অধ্যক্ষ জনাব প্রফেসর মোসাঃ মনোয়ারা খাতুন।   আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন উক্ত কলেজের ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান, বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোহাঃ আনোয়ারুল ইসলাম, প্রাণিবিদ্যা বিভাগের প্রভাষক জোবাইদা নাজনীন ইলা, জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ মসিউল করিম বাবু, সনাক সদস্য কনক রঞ্জন দাস। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সনাক সহসভাপতি জনাব গোলাম ফারুক মিথুন। কুইজ প্রতিযোগিতায় ১৬০ জন প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করে। আলোচনা সভা শেষে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার তুলে দেওয়া হয় এবং স্থানীয় শিল্পী ও কলেজের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয় অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সনাক সদস্য উম্মে সালমা হ্যাপি ও টিআইবির এরিয়া ম্যানেজার মোঃ শফিকুল ইসলাম। উভয় কর্মসূচিতে জেলার বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা, শিক্ষক ও শিক্ষার্থী, সনাক, স্বজন, ইয়েস ও ইয়েস ফ্রেন্ডস সদস্য, দুপ্রকের সদস্য, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, টিআইবি কর্মকর্তা, ইলেক্ট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকসহ সাধারণ নারী-পুরুষ উপস্থিত ছিলেন। বক্তারা বলেন, দূর্নীতি একটি বৈশ্বিক সমস্যা। দূর্ণীতি নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধে কার্যকর কর্মপন্থা নির্ণয়ে জাতিসংঘের উদ্যোগে ২০০৩ সালের ৩১ অক্টোবর ‘আন্তর্জাতিক দূর্ণীতিবিরোধী সনদ (ইউএনসিএসি) গৃহীত হয়। আর একই বছর ৯ ডিসেম্বর জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে অংশগ্রহণকারী ১২৯টি দেশের মধ্যে ৮৭টি দেশ এই সনদে স্বাক্ষর করে। স্বাক্ষর প্রদানের দিনটিকে স্মরণীয় রাখতে ও বিশ্বব্যাপী দূর্ণীতিবিরোধী আন্দোলন জোরদার করা লক্ষ্যে প্রতিবছর ৯ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক দূর্ণীতিবিরোধী দিবস হিসেবে পালন করা হয়। বক্তারা বলেন, বাংলাদেশ সরকারের দূর্ণীতিবিরোধী অবস্থানকে আরো সুদৃঢ় করার লক্ষ্যে এবং সাধারণ জনগলের মধ্যে দূর্ণীতিবিরোধী সচেতনা বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) ২০১৩ সাল থেকে ৯ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক দূর্ণীতিবিরোধী দিবস কে সরকারিভাবে পালনের স্বীকৃতির দাবি জানিয়ে আসছিলো। এরই ধারাবাহিকতায় এ দেশে ২০১৭ সালে প্রথমবারের মতো সরকারিভাবে আন্তর্জাতিক দূর্ণীতিবিরোধী দিবস উদযাপন করছে। সমাবেশে জানানো হয়, আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপটে বৈশ্বিক স্বীকৃত সূচকে দক্ষিণ এশিয়াসহ অনেক সমপর্যায়ের দেশের তুলনায় বাংলাদেশের সাফল্য দৃষ্টান্তমূলক। বাংলাদেশ ইতোমধ্যেই স্বল্প-মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছে। উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হওয়ার শর্তগুলোও পূলণ করেছে। একই গতিতে উন্নয়ন ধরে রাখতে পারলে ২০২১ সাল নাগাদ বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশের স্বীকৃতি পাবে। এসব বাংলাদেশের জন্য বড় অর্জন। দূর্ণীতির লাগাম টেনে ধতে পারলে এসব প্রাপ্তির ক্ষেত্র একদিকে যেমন আরো ত্বরাšি^ত ও সম্প্রসারিত হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে, তেমনি দেশের সকল মানুষ আর্থ-সামাজিক অবস্থান নির্বিশেষে অর্জিত উন্নয়ন ও গৌরবের সম-অংশীদার হতে পারবে। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) কর্তৃক প্রকাশিত “দূর্ণীতি ধারণা সূচক ২০১৭” অনুযায়ী শূন্য থেকে ১০০ স্কেলে বাংলাদেশে ২৮ স্কোর পেয়েছে, যা বৈশ্বিক গড় ৪৩ এর তুলনায় অকেন কম অর্থাৎ দূর্ণীতি নিয়তন্ত্রে মধ্যম মাত্রায় সাফল্য অর্জন থেকে এখনো অনেক পিছিয়ে রয়েছে। মানববন্ধন ও সমাবেশে আরো জানানো হয়, আন্তর্জাতিক দূর্ণীতিবিরোধী দিবস উপলক্ষে দূর্ণীতি প্রতিরোধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণে টিআবি সংশ্লিষ্ট অংশীজনের বিবেচনার জন্য নিম্নলিখিত সুপারিশসমূহ প্রস্তাব করেছে। ১. আসন্ন জাতীয় নির্বাচনের প্রেক্ষিতে রাজনৈতিক দলগুলো কর্তৃক গণতন্ত্র ও সুশাসনের বিদ্যমান ঘাটতি পূরণে সুনির্দিষ্ট অঙ্গীকার থাকতে হবে এবং অঙ্গীকারসমূহ কিভাবে বাস্তবায়িত হবে তার সুনির্দিষ্ট রূপরেখাও থাকতে হবে। ২. প্রতিটি রাজনৈতিক দলকে জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশলপত্র অনুসরণপূর্বক কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন করে তা বাস্তবায়ন ও প্রতিবছর অগ্রগতি পর্যালোচনা করতে হবে। ৩. নির্বাচনে কালো টাকার প্রভাব কমাতে প্রার্থীদের ব্যয়ের হিবেসে পর্যবেক্ষণ করতে সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্মকর্তা, সুশীল সমাজ ও বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধিদের সমš^য় আসন ভিত্তিক কমিটি গঠন করতে হবে। ৪. আন্তর্জাতিক দূর্ণীতিবিরোধী দিবসে জনসম্পৃক্ততা অর্থবহ করার লক্ষ্যে এবং গণতান্ত্রিক জবাবদিহিতাসহ সকল নাগরিকের বাক্-স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ও জাতীয় সম্প্রচার আইন এর বিতর্কিত ধারাসমূহ বাতিল করতে হবে। ৫. সরকারি খাতে অনিয়ম ও দূর্ণীতি প্রতিরোধ করতে ‘সরকারি চাকরি আইন-২০১৮’ এর বিতর্কিত ধারাসমূহ বাতিল করতে হবে। ৬. ঋণ খেলাপিতে জর্জড়িত রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ব্যাংকিং খাতে দূর্নীতি ও জালিয়াতি এবং বেসরকারি ব্যাংকের নজিরবিহীন আর্থিক কেলেঙ্কারির সাথে সম্পৃক্ত ব্যক্তিবর্গকে বিচারের আওয়তায় এনে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। ৭. বিচার ব্যবস্থা, প্রশাসন ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থায় পেশাদারি উৎকর্ষ বৃদ্ধির লক্ষ্যে একটি সমšি^ত ও পরিপূরক কৌশল গ্রহণ করতে হবে। ৮. সংবিধিবদ্ধ প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রধান ও সদস্যদের নিয়োগে যোগ্যতার মাপকাঠি নির্ধারণ এবং স্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় নিয়োগ নিশ্চিত করতে হবে। ৯. তথ্য অধিকার আইনে ব্যবসায়, রাজনৈনিতিক উভয় ক্ষেত্রে সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে হবে। একই সাথে, তথ্য প্রকাশকারী সুরক্ষা আইন দ্রুত বাস্তবায়নের উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে এবং ১০. দূর্ণীতি প্রতিরোধে দুদককে শক্তিশালী করতে রাজনৈতিক সদিচ্ছার কার্যকর প্রয়োগ নিশ্চিত করতে হবে। অন্যদিকে দুদকে নেতৃত্ব পর্যায়ে অকুতোভয় সৎসাহস, দৃঢ়তা ও নিরপেক্ষতা নিশ্চিত করতে হবে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *