Sharing is caring!

চাঁপাইনবাবগঞ্জে নিরাপদ আম চাষে করণীয় বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের নিয়ে প্রশিক্ষণ কর্মশালা

♦ স্টাফ রিপোর্টার

আমের রাজধানী চাঁপাইনবাবগঞ্জের কানসাটে দেশের স্বনামধন্য কোম্পানী ‘র‌্যাভেন গ্রæপ’র আয়োজনে আধুনিক পদ্ধতিতে নিরাপদ আম চাষে কৃষকদের পরামর্শ ও কলাকৌশল বিষয়ে ধারণা দেয়ার লক্ষে প্রশিক্ষণ কর্মশালা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে স্থানীয় মেসার্স পায়েল ট্রেডার্সের সহযোগিতায় প্রতিষ্ঠানের কানসাটস্থ মিলনায়তনে দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালার উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি র‌্যাভেন গ্রæপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক লায়ন এম. আতিকুর রহমান কামাল। ‘বাংলাদেশের কৃষি ও কৃষকের সমৃদ্ধি প্রতিশ্রæতি’ শ্লোগানে কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ বিএমডিএ’র নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ শফিকুল ইসলাম। বক্তব্য রাখেন মোবারকপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তৌহিদুর রহমান মিঞা। বিশেষ অতিথি ছিলেন, র‌্যাভেন গ্রæপের উপদেষ্টা ও কৃষি মন্ত্রণালয়ের বাংলাদেশ চা গবেষণা ইনষ্টিটিউটের অবসরপ্রাপ্ত পরিচালক ড. মাইবুদ্দিন আহমেদ, র‌্যাভেন গ্রæপের হেড অব বিজনেস কৃষিবিদ ড. মোঃ জাহিদুল ইসলাম। ‘র‌্যাভেন গ্রæপ’র বিভিন্ন পণ্য ও পন্যের ব্যবহার বিষয় এবং গুণগত মান বিষয়গুলো তুলে ধরেন র‌্যাভেন গ্রæপের জেলা পরিবেশক ও মেসার্স পায়েল ট্রেডার্সের পরিচালক শ্রী প্রকাশ চন্দ্র দাস। প্রশিক্ষণ কর্মশালায় জেলার প্রায় ৩ শতাধিক আম চাষী, বাগান মালিক, ব্যবসায়ী, বিভিন্ন পণ্যের এজেন্ট অংশ নেয়। কর্মশালায় আসন্ন আম মৌসুমে আম চাষীদের আমের পরিচর্যা, গুণগত মানের আম উৎপাদন, বিভিন্ন ঔষধ ব্যবহার, উপকারীতা, জৈব সার ব্যবহার, পরিচর্যার নিয়মাবলী, ‘র‌্যাভেন গ্রæপ’র পণ্যের মান ও দেশীয় ও বিদেশী আমদানীকৃত কীটনাশকের কার্যকারিতাসহ আম উৎপাদনের নানা বিষয় তুলে ধরা হয়। এছাড়াও ‘র‌্যাভেন গ্রæপ’র অন্যান্য ফসলের জন্য ব্যবহার্য বিভিন্ন পণ্য বিষয়েও ধরণা দেয়া হয়। এসময় ‘র‌্যাভেন গ্রæপ’র বিভিন্নস্তরের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা ও মিডিয়াকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি র‌্যাভেন গ্রæপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক লায়ন এম. আতিকুর রহমান কামাল ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ বিএমডিএ’র নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ শফিকুল ইসলাম বলেন, বর্তমান সরকারের আন্তরিক প্রচেষ্টায় বর্তমানে দেশ খাদ্যে সয়ং সম্পূর্ণতা অর্জন করেছে। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। এখন আমাদের গুণগত মানের ফসল তৈরী করতে হবে। দেশী পণ্যের মান বাড়াতে ‘র‌্যাভেন গ্রæপ’র পণ্যের কোন বিকল্প নেই উল্লেখ করে তিনি বলেন, শুধু কীটনাশক বা রাসায়নিক সার ব্যবহার করেই ভালো ফল পাওয়া যাবে না। এজন্য পর্যাপ্ত পরিমানে জৈব সার ব্যবহার করতে হবে। ভালো মানের বা ভালো প্রতিষ্ঠানের জেনে শুনে বুঝে ঔষধ ব্যবহার করতে হবে। তাহলেই আমাদের প্রচষ্টো সার্থক হবে। তিনি বলেন, ২০০৩ সাল থেকে ‘র‌্যাভেন গ্রæপ’ দেশের কৃষিকে এগিয়ে নিতে কাজ করে যাচ্ছে। দেশেই নিজেদের কেমিক্যাল ল্যাবে পরীক্ষা করে কৃষকদের কাছে ‘র‌্যাভেন গ্রæপ’ পণ্য সরবরাহ করে আসছে। তিনি কৃষকদের আরও বেশী বেশী করে গাছের পরিচর্যার মাধ্যমে উন্নত মানের আমসহ অন্যান্য ফসল উৎপাদন করে লাভবান হওয়ার অনুরোধ জানান।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *