Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার \ পবিত্র ঈদ-ই মিলাদুন্নবী (সাঃ) উপলক্ষে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল হয়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জে। শনিবার সকালে জেলা প্রশাসক ও ইসলামিক ফাউন্ডেশন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের আয়োজনে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার টি.এম মোজাহিদুল ইসলাম বিপিএম। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আবু হায়াত মোঃ রহমতুল্লা’র সভাপতিত্বে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলমগীর হোসেনের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব রুহুল আমিন, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মোখলেশুর রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা সোহরাব হোসেন, ইসলামিক ফাউন্ডেশন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক আবুল কালামসহ অন্যরা। এসময় উপস্থিত ছিলেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মসজিদ ভিত্তিক গণশিক্ষা কার্যক্রমের আওতাধিন জেলার বিভিন্ন উপজেলার ইমামগণ ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। আলোচনা সভায় মহানবী হযরত মোহাম্মাদ (সাঃ) এর জীবনের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেন বক্তারা। সভায় প্রধান অতিথি পুলিশ সুপার টি.এম মোজাহিদুল ইসলাম বিপিএম বলেন, মহানবী হযরত মোহাম্মাদ (সাঃ) এর আজ জন্মদিন ও বিদায়ের দিন। এইদিনটি আমরা সরকারীভাবে পালন করছি। কয়েক বছর আগে ঈদ-ই মিলাদুন্নবী (সাঃ) পালিত হত ঘরোয়া পরিবেশ মসিজদে মসজিদে। কিন্তু বর্তমান সরকার এই দিনটি রাষ্ট্রীয়ভাবে পালনের উদ্যোগ নিয়েছেন। আমরা যেন পবিত্র ঈদ-ই মিলাদুন্নীব (সাঃ) পালন করতে পারি। তিনি আরো বলেন, ইসলামের জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, মাদক সেবক, মাদক ব্যবসা নিষেধ থাকলেও কতিপয় ব্যক্তিরা এইসব কর্মকান্ডে জড়িয়ে আছে। তাদের এইসব কর্মকান্ড থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। উপস্থিত ইমামগণদের উদ্দেশ্যে পুলিশ সুপার বলেন, আপনার জুম্মার দিন খুৎবাহ’র সময় জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, মাদক সেবক, মাদক ব্যবসার কুফল বিষয়ে আলোচনা করবেন। আপনাদের এলাকায় অনেকে প্রকাশ্যে এই সব কর্মের সাথে জড়িত, আবার অনেকে গোপনে করে থাকে। তাদের বিরুদ্ধে জুম্মার নামাযের আগে বক্তব্য দিবেন। প্রধান অতিথি পুলিশ সুপার বলেন, শীত আসলে ইসলামী জলসার তৎপরতা বেড়ে যায় জেলায়। আমরা অনেকে বাইরের জেলা থেকে মাওলানা এসে ওয়াজ করাচ্ছি। কিন্তু আপনারা হয়তো জানেন না, যেসব মাওলানা আমাদের জেলা এসে ওয়াজ মাহফিল করে, তাদের এলাকায় ইসলামী ও দ্বিনের প্রচার করতে পারে কি না সন্দেহ। আমি আপনাদের বলতে চাই, টাকার জন্য যে সব মাওলানার ওয়াজ করে, তারা কিভাবে বলে আমরা ইসলামী দিন প্রতিষ্ঠা করছি? তিনি আরো বলেন, আপনারা তাফসীর মাহফিলের জন্য অনুমতি চাইবেন আমি দিবো। কিন্তু বাইরের জেলা থেকে কোন মাওলানা আনলে তা দেয়া হবে না। আমাদের জেলায়ও অনেক ভালো ভালো বক্তা আছেন, তাদের নিয়ে ইসলামী জলসা, মাহফিল করেন। আমি এতে আপনাদের সহযোগিতা করবো।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *