Sharing is caring!

chapai municipilaty--26.08.16চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি \ উজানের ফাঁরাক্কা থেকে আসা পানিতে আকষ্মিক পানি বৃদ্ধি হয়ে প্লাবিত হওয়া বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। পানি কমেছে পদ্মা ও মহানন্দা নদীতে। তবে বন্যার পানি কমার সাথে সাথে বন্যাদূর্গত এলাকায় বিভিন্ন রোগের প্রকোপ দেখা দিতে পারে। তাই এসব এলাকায় মেডিকেল টিম দিয়ে টিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে হবে। অন্যথায় বন্যাদূর্গত এলাকার নারী-পুরুষ ও শিশুরা বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে চরম বেকায়দায় পড়বে বলে আশংকা করছেন স্থানীয়রা। পানি উন্নয়ন বোর্ড সুত্র মঙ্গলবার জানিয়েছে, গত ২৪ ঘন্টায় পদ্মায় ৪ সেন্টিমিটার ও মহানন্দায় ১ সেন্টিমিটার পানি কমেছে। ফলে বন্যার পানি দ্রুতই নেমে যাবে এবং বন্যার কবল থেকে রক্ষা পাবে পদ্মা নদী তীরবর্তী নি¤œাঞ্চলের মানুষরা। এদিকে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বন্যার্ত এলাকায় ত্রান সহায়তা কার্যক্রম অব্যহত রয়েছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ সাহিদুল ইসলাম জানান, উজানে ভারতে বন্যার পানি কমে গেছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জের পদ্মা ও মহানন্দায় বন্যার পানি কমতে শুরু করেছে। কয়েকদিনের মধ্যেই বন্যার পানি কমে ¯^াভাবিক পর্যায়ে চলে আসবে। উল্লেখ্য, আকস্মিক বন্যায় চাঁপাইনবাবগঞ্জের প্রায় ৪৫টি গ্রাম বন্যার পানিতে ডুবে যায়। বন্যাকবলিত এলাকায় হাজার হাজার বিঘা জমির ধানসহ বিভিন্ন ফসল নষ্ট হয়ে যায়। সদর উপজেলার আলাতুলী, দেবীনগর, ইসলামপুর, নারায়নপুর ও চরবাগডাঙ্গা ও শিবগঞ্জ উপজেলার পাঁকা, দুর্লভপুর, উজিরপুর, ঘোড়াপাখিয়া ও মনাকষা ইউনিয়নসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের বেশ কিছু এলাকা প্লাবিত হয়েছে। তবে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয় পাঁকা ইউনিয়ন। এসব এলাকায় সংকট দেখা দেয় বিষুদ্ধ পানি ও খাবারের সংকট। গ্রামের অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানই পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় বন্ধ হয়ে যায় পাঠ দান। বন্যার পানিতে ডুবে কোন রকমে ছেলে মেয়েদের মাচায় নিয়ে রাত কাটায় অভিভাবকরা। কিছু এলাকায় ত্রান সহায়তা পৌছলেও সরকারীভাবে কোন ত্রাণ সহায়তা পৌছায়নি বন্যা দূর্গত পাঁকা ইউনিয়নের বন্যাকবলিত মানুষদের কাছে বলে জানিয়েছে স্থানীয়রা।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *