Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার \ মহান বিজয় দিবসে চাঁপাইনবাবগঞ্জে বীর শহীদদের বিনম্র শ্রদ্ধা জানানো হয়েছে। শনিবার সকালে মুক্তিযোদ্ধা, সংসদ সদস্য, জেলা জজশীপ, জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, জেলা পরিষদ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রেসক্লাব, আমার চ্যানেল আই দর্শক ফোরাম চাঁপাইনবাবগঞ্জ, দৈনিক চাঁপাই দর্পণ উপদেষ্টা পরিষদ, জেলা আওয়ামীলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলালীগ, যুবলীগ, যুব মহিলালীগ, শ্রমিকলীগ, কৃষকলীগ, তাঁতীলীগ, এরফান গ্রæপ, বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন ও সাধারণ মানুষ ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায় বীর সন্তানদের। বিভিন্ন সংগঠনের পাশাপাশি শিশুরাও আসে শহীদ বেদীতে ফুল দিতে। বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে বিজয় র‌্যালী বের হয়। মহান বিজয় দিবসে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে প্রত্যুষে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিনের কর্মসুচীর সুচনা হয়। চাঁপাইনবাবগঞ্জ কালেক্টরেট চত্বরে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিফলকে সকালে পৌনে ৭টায় জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট, জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন ও সাধারণ মানুষ পুস্পস্তবক অর্পণ করে। পরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্পমাল্য অর্পণ করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সিরাজুল ইসলাম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ সদর আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওদুদ, জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল হাসান, পুলিশ সুপার টি.এম মোজাহিদুল ইসলাম বিপিএম, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব মঈনুদ্দিন মন্ডল, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. মিজানুর রহমান, এ্যাড, ইয়াসমীন সুলতানা রুমা, পিপি এ্যাড. জবদুল হক, জেলার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোজাম্মেল হক, পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সভাপতি মনিরুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধাগণসহ বিভিন্ন সরকারি অফিস প্রধানগণ ও সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। চাঁপাইনবাবগঞ্জ স্টেডিয়ামে জেলা প্রশাসনের আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, অভিবাদন গ্রহণ এবং কুচকাওয়াজ পরিদর্শণ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ বনাম জেলা ক্রীড়া সংস্থার একাদশের মধ্যে টি-টুয়েন্টি ক্রিকেট প্রতিযোগিতা, শ্যুটিং প্রতিযোগিতা, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবার ও যুদ্ধাহত ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধণা, বিভিন্ন উপসনালয়ে দোয়া ও প্রার্থণা, জেলা প্রশাসন ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার একাদশের মধ্যে ফুটবল প্রতিযোগিতাসহ নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে পালিত হয়েছে মহান বিজয় দিবস। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসকের পত্নী নুরুন আখতার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এরশাদ হোসেন খান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ রহমতুল্লাহ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব আলম খান, জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটগণসহ মুক্তিযোদ্ধাগণ, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। বিকেলে হরিমোহন সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আলোচনা সভা, মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচারণ, পুরস্কার বিতরণ, বিজয় মেলার উদ্বোধন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। সভায় মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি চারণ করেন বক্তারা। বর্তমান সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্য বাস্তবায়নে সকলের সহযোগিতা নিয়ে দেশকে এগিয়ে নেয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন সভার অতিথিরা। বক্তারা বলেন, অনেক প্রাণ ও রক্তের বিনিময়ে পাওয়া এই স্বাধীনতার পর একদল ষড়যন্ত্রকারী ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট জাতির পিতাকে নৃসংশভাবে হত্যা করে দেশকে পিছিয়ে দেয়ার চেষ্টা করলেও বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকারের প্রচেষ্টায় দেশ এগিয়ে চলেছে। স্বাধীনতা বিরোধী চক্রের ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে ধর্মনিরপেক্ষ, সুখী, সমৃদ্ধ, ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গড়বে দেশের মানুষ। পরে বিজয় দিবসের উপর রচনা, চিত্রাংক, আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন অতিথিরা। শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দেশাত্ববোধক গান পরিবেশিত হয়। এদিকে, মহান বিজয় দিবসে নবাবগঞ্জ সরকারী কলেজ, নবাবগঞ্জ সরকারী মহিলা কলেজ, হরিমোহন সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়, গ্রীণভিউ উচ্চ বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে বিভিন্ন কর্মসুচী পালন করা হয়। এছাড়া জেলার সকল উপজেলায় মহান বিজয় দিবস নানা কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে পালিত হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *