Sharing is caring!

চাঁপাইনবাবগঞ্জে মসক নিধন ও

পরিচ্ছন্নতা সপ্তাহের উদ্বোধন

♦ স্টাফ রিপোর্টার

“নিজ আঙ্গিনা পরিস্কার রাখি, সবাই মিলে সুস্থ থাকি” এই ¯েøাগানে মসক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা সপ্তাহের উদ্বোধন হয়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জে। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়। শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে গ্রীণ ভিউ উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে গিয়ে র‌্যালীটি শেষ হয়। জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হকের নেতৃত্বে ও জেলা প্রশাসনের আয়োজনে অনুষ্ঠিত র‌্যালীতে অংশগ্রহণ করেন, পুলিশ সুপার টি.এম মোজাহিদুল ইসলাম বিপিএম-পিপিএম, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব রুহুল আমিন, নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. শংকর কুমার কুন্ডু, সিভিল সার্জন ডা. জাহিদ নজরুল চৌধুরী, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট দেবেন্দ্র নাথ উরাঁও, নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজের বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. মাজহারুল ইসলাম তরু, জেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা আনন্দ কুমার অধিকারী, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য হালিমা খাতুন, জেলা তথ্য কর্মকর্তা মো. ওয়াহিদুজ্জামান, জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা শফিকুল আলম, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক রওশন আরা বেগম, জেলা কালচারাল অফিসার ফারুকুর রহমান ফয়সাল, জেলা পরিষদ সদস্য আব্দুল হাকিমসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার কাউন্সিলর, কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা, এনজিও প্রতিনিধি, রোভার স্কাউট ও রেডক্রিসেন্টের সদস্যরা। র‌্যালী শেষে গ্রীণ ভিউ উচ্চ বিদ্যালয়ের পাশে পড়ে থাকা আবর্জনা ও আগাছা পৌরসভা পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের মাধ্যমে অপসারণের মাধ্যম্যে মসক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা সপ্তাহের উদ্বোধন করা হয়। এর আগে র‌্যালী চলাকালীন সময়ে “ডেঙ্গু মুক্ত দেশ চাই, পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার বিকল্প নাই” এই ¯েøাগানে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার উদ্যোগে মেশিনের মাধ্যমে মশা নিধন কার্যক্রম শুরু হয়। এসময় জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক বলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জকে পরিচ্ছন্ন জেলা হিসেবে গড়ে তুলতে এই মসক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা সপ্তাহ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার প্রত্যেকদিন একেকটি ওয়ার্ডকে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন হিসেবে গড়ে তুলতে বিশেষ অভিযান করা হবে। এমনকি ডাস্টবিন ছাড়া কেউ যততত্র ময়ল-আবর্জনা ফেললে এর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। তিনি আরো বলেন, ময়লা-আর্বজনায় শকুরের বিচরণ পরিবেশকে আরো দূষণ করছে। তাই এটিও নিয়ন্ত্রণ করা জরুরী। এসময় তিনি শহরের সকল শকুর মালিককে ডেকে এ বিষয়ে আলোচনা করার জন্য নির্দেশনা দেন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *