Sharing is caring!

র‌্যালী-আলোচনা-পুরস্কার বিতরণী

চাঁপাইনবাবগঞ্জে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার

ও পাচারবিরোধী দিবস পালিত

♦ স্টাফ রিপোর্টার

বিভিন্ন আয়োজনে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধপাচার বিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস পালিত হয়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জে। এ উপলক্ষে জেলা প্রশাসন ও জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের আয়োজনে বর্ণাঢ্য র‌্যালী, আলোচনা সভা ও চিত্রাংকন প্রতিয়োগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান হয়েছে। বুধবার সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে এসে শেষ হয়। র‌্যালীতে অংশগ্রহণ করে ইসলামিক ফাউন্ডেশন, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, আসক্ত পূনর্বাসন সংস্থা (আপস), সেভ দ্যা চিলড্রেন, কেয়ার বাংলাদেশ, প্রয়াস মানবিক উন্নয়ন সোসাইটি, নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজ, নবাবগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজ, নবাবগঞ্জ সিটি কলেজের শিক্ষার্থীরাসহ বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ। র‌্যালী শেষে জেলা প্রশাসকের সম্মেলণ কক্ষে মাদক বিরোধী আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট দেবেন্দ্র নাথ উঁরাও এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব আলম খান পিপিএম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ আনিছুর রহমান খাঁন। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা মো. শফিকুল আলম, জেলা ক্রীড়া শিক্ষা অফিসার আখতারুজ্জামান রুমি তালুকদার, জেলসুপার মো. শফিকুল ইসলাম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স এ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির পরিচালক মো. শহিদুল ইসলাম, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর চাঁপাইনবাবগঞ্জ কার্যালয়ের পরিদর্শক রাইহান আহমেদ খান, এনজিও প্রতিনিধি ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক বলেন, মাদকের কারনে মেধা বিকশিত হয় না। তাই শিক্ষার্থীদের ভবিষৎ জীবনের কথা চিন্তা করে মাদক থেকে অনেক দূরে থাকতে হবে। মাদক গ্রহণে শুধুমাত্র মাসকসেবীই ধ্বংশ হয় না, নিজের সাথে পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রকেও ধ্বংশ করে দেয়। তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকারের নির্বাচনী ইশতেহারে যে কয়েকটি বিষয়ে যুদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে, তার মধ্যে প্রথমেই রয়েছে মাদক। সরকার মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে নিরলসভাবে কাজ করছে। মাদক একেবারে নিমূল করা না গেলেও, তা নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব। এর জন্য প্রয়োজন সকলের সহযোগিতা, বিশেষ করে শিক্ষার্থীদের। সরকারি বিভিন্ন অফিসগুলোও মাদকমুক্ত নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের সমাজ থেকে এই অভিশাপকে দূর করতে প্রত্যেককেই নিজ নিজ জায়গা থেকে দায়িত্ব নিয়ে কাজ করতে হবে। প্রত্যেক পরিবার বা প্রতিষ্ঠানকে নিজেদেরই নিশ্চিত করতে হবে, মাদকমুক্ত করার। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব আলম খান পিপিএম বলেন, সন্তানদের মাদকদ্রব্য সেবন থেকে দূরে রাখতে বাবা-মাকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে। ভবিষৎ প্রজন্মকে বাঁচাতে প্রত্যেক অভিভাবকদেরকে এগিয়ে আসতে হবে। শিক্ষার্থীদর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ডোপ টেস্টে পজেটিভ হলে কোন সরকারি চাকরি হবে না, গতকালই এমন একটি গেজেট প্রকাশ হয়েছে। মহান মুক্তিযুদ্ধের প্রতিটি ফোঁটা রক্তের প্রতিদান দিতে মাদকমুক্ত সমাজ গড়তে শিক্ষার্থীদেরকেই এগিয়ে আসতে হবে। এর আগে ¯স্বাগত বক্তব্যে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ আনিছুর রহমান খাঁন বলেন, যেকোন অপরাধের বিরুদ্ধে আইন প্রয়োগের চেয়ে জনসচেতনতায় অধিক কার্যকর। তাই মাদক থেকে দূরে থাকতে সচেতনতাই সবচেয়ে কার্যকরী উপায় বলে উল্লেখ করেন তিনি। এসময় আরো বক্তব্য রাখেন, সংবাদিক জাকির হোসেন পিংকু, নামোশংরবাটি ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক জাহিদা নাজনীন, আসক্ত পূনর্বাসন সংস্থা (আপস) এর প্রতিনিধি আব্দুর রাজ্জাক, নবাবগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী সুমাইয়া ইসলাম, মাদক থেকে পূনর্বাসন হওয়া সাহিন কাদির। পরে জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের আয়োজনে আন্তর্জাতিক মাদকবিরোধী দিবস উৎযাপন উপলক্ষে গত ১৪ জুন জেলা শিশু একাডেমীতে অনুষ্ঠিত চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার প্রদান করা হয়। উল্লেখ্য, ৪টি বিভাগে মোট ৩০ জন শিক্ষার্থী প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়। ৯ বছর পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা ক বিভাগে, ১০-১৪ বছর বয়সী শিক্ষার্থীরা খ বিভাগে, ১৫-১৮ বছর বয়সী শিক্ষার্থীরা গ বিভাগে এবং প্রতিবন্ধী শিশুরা ঘ বিভাগে বিভিন্ন ছবি অংকন করে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *