Sharing is caring!

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সংবাদদাতা \ হত্যা মামলা দায়েরের প্রায় ৩ মাস পর চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার শাহজাহানপুর ইউনিয়নের নরেন্দ্রপুর মুন্নাপাড়ার মাহতাব আলীর ছেলে রাজমিস্ত্রী সেলিমের (২৭)  লাশ কবর থেকে উত্তোলন করা হয়েছে। হত্যা রহস্য উদঘাটনের জন্য নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের উপস্থিতিতে লাশ উত্তোলন করে শুক্রবার রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগে পাঠানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট রফিকুল ইসলামের উপস্থিতিতে লাশটি পূনরায় কবর থেকে উঠানোর পর শুক্রবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা চাপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানার উপপরিদর্শক আতাউর রহমান গলিত লাশের বিভিন্ন নমূনা নিয়ে বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষা ও  ময়না তদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগে গেছেন। এ বছরের ২৭ মার্চ সেলিম রাজশাহী মহানগরীর বিন্দুর মোড় এলাকায় সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত হয়েছে মর্মে লাশ বাড়ী নিয়ে দাফন করা হয়। কিন্তু পরে সন্দেহ হওয়ায় নিহত যুবকের পিতা চাঁপাইনবাবগঞ্জ আদালতের শরনাপন্ন হন। এরপর চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের নির্দেশক্রমে সদর মডেল থানায় গত ১৮ মে মামলা দায়ের করা হয়, যার নম্বর ৩৫। সড়ক দূর্ঘটনায় সেলিমের মৃত্যুর কথা বলা হলেও এটি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড বলে দাবী করছেন নিহতের পরিবার। ঘটনার সময় রাজশাহী মহানগরের বোয়ালিয়া থানার উপপরিদর্শক তবারকের তত্ত¡াবধানে লাশটি ময়না তদন্ত ছাড়াই চাঁপাইনবাবগজ্ঞে ফেরৎ পাঠানো হয় বলে জানান মামলার বর্তমান তদন্ত কর্মকর্তা। যদিও ঘটনাস্থল বোয়ালিয়া থানার অন্তর্গত কিনা তা নিশ্চিত নয়। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগে পরীক্ষার  জন্য গলিত লাশের  বিভিন্ন নমুনা নিয়ে অপেক্ষমান তদন্ত কর্মকর্তা আতাউর রহমান শুক্রবার জানান, পুলিশ পুরো ঘটনাটি পূর্নাঙ্গভাবে তদন্ত করছে। এখন ফরেনসিক বিভাগে পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়ার পর  যুবকের  মৃতুর রহস্য জানা যাবে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *