Sharing is caring!

চাঁপাইনবাবগঞ্জে রবিবার রাতে ফটুলো নাইট কুইন-

♦ডি এম কপোত নবী (স্টাফ রিপোর্টার)

যে ফুল কয়েক বছরে একবার ফোটে, সেই ফুল নিয়ে সবার কৌতূহল থাকবে এটাই স্বাভাবিক। তেমনই একটি ফুল ‘নাইট কুইন’। মিষ্টি মনোহরিণী সুবাস, দুধসাদা রং, স্নিগ্ধ ও পবিত্র পাপড়ি আর সৌভাগ্যের প্রতীক হিসেবে এই ফুল পরিচিত। রবিবার দিবাগত রাতে সে নাইট কুইন ফুল ফোটে চাঁপাইনবাবগঞ্জে। রাতের আঁধারে নিজের সৌন্দর্য মেলে ধরে সকাল হওয়ার আগেই ঝরে পড়ে নাইট কুইন। তাই এই একটি ফুলের জন্য বছরের পর বছর অপেক্ষা করতে হয় ফুল প্রেমীদের। আমাদের দেশে দুর্লভ প্রজাতির ফুল হিসেবেই গণ্য করা হয় নাইট কুইনকে। এবিষয়ে রেজা টেলিকমের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রেজা জানান, ‘নাইট কুইন খুবই দুস্প্রাপ্য ফুল। বিভিন্ন ফুলের গাছ আমাদের বাড়িতে আছে। গত বছর আমার টবে ৪টি নাইট কুইন ফুল ফুটেছিলো। এবারো ফুটেছে। তিনি আরো জানান, সৌন্দর্যের প্রতীক হিসেবে গাছটি লাগিয়েছিলাম। ফুলের সৌন্দর্য আমাকে খুব আকৃষ্ট করে। আমাদের সকলের উচিত গাছ লাগিয়ে পরিবেশের ভারসাম্য ফিরিয়ে আনা।’ পরিবারের সবাই এটি পছন্দ করেন। রকি খান নামে এক ব্যবসায়ী জানান, শখ করেই নাইট কুইন ফুল গাছ সংগ্রহ করেছিলাম। রোববার দিবাগত রাতে সে নাইট কুইন ফুল ফোটে। খুব ভাল লাগছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জের বেশ কিছু বাড়িতে টবে নাইট কুইন ফুল গাছ লাগিয়েছেন ফুল প্রেমীরা। নাইট কুইনের বৈজ্ঞানিক নাম পেনিওসিরাস গ্রেজ্জি। বিরল ক্যাকটাস জাতীয় এ ফুলটির বৈশিষ্ট্য অন্যান্য ফুলের তুলনায় একটু আলাদা। বছরের মাত্র একদিন এবং মধ্যরাতে পূর্ণ বিকশিত হয়। আর শেষরাতেই জীবনাবসান ঘটে। পাথরকুচির মতো পাতা থেকেই এই ফুলগাছের জন্ম হয়। আবার পাতা থেকেই প্রস্ফুটিত হয় ফুলের গুটি। ১৫ দিন পর গুটি থেকে কলি হয়। যে রাতে ফুলটি ফুটবে, সেদিন বিকেল থেকেই কলি অদ্ভুত সুন্দর রূপে সাজে। ধীরে ধীরে অন্ধকার যখন চারিদিকে ঘিরে ধরে, ঠিক তখন নিজের সৌন্দর্যে স্বমহিমায় প্রকাশিত হয় ফুলটি। এর সুবাসে তীব্রতা না থাকলেও অদ্ভুত মিষ্টি মনোহরিণী গন্ধ আছে, যা ফুলপ্রেমীদের সবসময়ই কাছে টানে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *