Sharing is caring!

চাঁপাইনবাবগঞ্জে সোনামসজিদ পর্যটন মোটেলের উদ্বোধন

♦ স্টাফ রিপোর্টার

পর্যটনের অপার সম্ভাবনাময় জেলা চাঁপাইনবাবগঞ্জে উদ্বোধন করা হয়েছে সোনামসজিদ পর্যটন মোটেলের। মঙ্গলবার দুপুরে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধান অতিথি হিসেবে এর উদ্বোধন করেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী এমপি।

বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান রাম চন্দ্র দাসের সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল মাধ্যমে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. মহিবুল হক। বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের আয়োজনে চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রান্ত হতে জেলা প্রশাসক মঞ্জুরুল হাফিজের সঞ্চালনায় ভার্চুয়াল মাধ্যমে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ (শিবগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য ডা. শামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল, চাঁপাইনবাবগঞ্জের সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য ফেরদৌসী ইসলাম জেসী, সমাজসেবা মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের কৃতি সন্তান জিল্লার রহমান, শিবগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম। ভিডিও কনফারেন্সে আরো যুক্ত ছিলেন, পুলিশ সুপার এএইচএম আব্দুর রকিব, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক এমপি আব্দুল ওদুদ, শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাকিব-আল-রাব্বি, শিবগঞ্জ পৌর মেয়র কারিবুল হক রাজিন, সোনামসজিদ পর্যটন মোটেলের ম্যানেজার মনোয়ার ফেরদৌস খন্দকারসহ বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ। ভিডিও কনফারেন্সে প্রতিমন্ত্রীর উদ্বোধন শেষে দেশ ও জাতি এবং পর্যটন মোটেলের উন্নয়ন কামনায় দোয়া করা হয়।

পরে সোনামসজিদ পর্যটন মোটেল নির্মাণ কাজ তদারকির দায়িত্ব পালনকালে গত ২০১৩ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারী জামায়াত-শিবিরের হামলায় নিহত প্রকৌশলী তহিদুল ইসলামের স্মরণে প্রতিকৃতির উন্মোচন করা হয়। পর্যটকদের কাঙ্খিত সেবা দিতে সংশ্লিষ্টদের আহ্বান জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী এমপি বলেন, করোনাকালীন সময়ে বিশেষ নজর দিতে হবে পর্যটকদের প্রতি। এছাড়াও চাঁপাইনবাবগঞ্জের বিভিন্ন ঐতিহ্যবাহী স্থান ও পুরাকীর্তি দেখতে দেশের বাইরের পর্যটকদের নিয়ে আসতে বিভিন্ন পরিকল্পনা গ্রহনের আহ্বান জানান তিনি। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আলোচনা সভায় জেলা প্রশাসক মঞ্জুরুল হাফিজ বলেন, জেলার মধ্যে ভোলাহাট উপজেলার বিল ভাতিয়া ও সদর উপজেলার আরামবাগ বিল সংরক্ষণ করে পর্যটন উপযোগী করতে পারলে জেলাবাসী বিনোদন কেন্দ্র হিসেবে পাবে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *