Sharing is caring!

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি \ সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড ও বিভিন্ন সেবা সমূহ এবং সরকারের গৃহীত উন্নয়ন পরিকল্পনা সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরতে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসনের আয়োজনে ১১ থেকে ১৩ জানুয়ারী ৩ দিনব্যাপী উন্নয়ন মেলার সমাপণী অনুষ্ঠান ও পুরস্কার বিতরণ করা হয়েছে। শনিবার বিকেলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের হরিমোহন সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে উন্নয়ন মেলা চত্বরে সমাপণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মাহমুদুল হাসান। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ দেলোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে সমাপনী আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব আলম খান, বিশিষ্ট সমাজ সেবক মনিম উদ দৌলা চৌধুরী, নবাবগঞ্জ সরকারী কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ সুলতানা রাজিয়া, চাঁপাইনবাবগঞ্জ চেম্বারের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল হান্নান হান্নু। এসময় উপস্থিত ছিলেন  নবাবগঞ্জ সরকারী কলেজের বাংলা বিভাগের প্রধান প্রফেসর ড. মাযহারুল ইসলাম তরু, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এরশাদ হোসেন খান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ রহমতুল্লাহ, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব রুহুল আমিন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ স্বাধীন সাহিত্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক তুফান, জেলা তথ্য অফিসার মোঃ ওয়াহেদুজ্জামান, উপজেলা চেয়ারম্যান মোখলেশুর রহমান, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মোঃ আলমগীর হোসেন, জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটগণ, ফারুক আহাম্মেদসহ বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারী অফিস প্রধানগণ ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। মেলায় অংশ গ্রহণকারী সরকারী-বেসরকারী, এনজিও, বীমা কোম্পানী, সামাজিক প্রতিষ্ঠানের মোট ৮২টি স্টলের মধ্য থেকে শ্রেষ্ঠ স্টল হিসেবে ৩টি প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কার দেয়া হয়। এর মধ্যে প্রথম হয় সড়ক ও জনপদ বিভাগ, ২য় হয় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ও ৩য় হয় চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসন। এছাড়াও মেলা চলাকালিন সময়ে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণকারীদের মধ্যে বিজয়ীদের হাতেও পুরস্কার তুলে দেন অতিথিরা। উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার সকাল সোয়া ১১টায় সারাদেশের মত ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের হরিমোহন সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ৩ দিনব্যাপী উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বর্তমান সরকারের ৯ বছরের উন্নয়নের চিত্র জেলা ও উপজেলার সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরার জন্য মেলার আয়োজন করা হয়। প্রতিদিন দুপুর থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত মেলার স্টলগুলো সর্বসাধারনের জন্য উন্মুক্ত রাখা হয়। প্রতিদিনই বিকেলে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজনও করা হয় উন্নয়ন মেলা চত্বরে। জেলা উপজেলার হাজার হাজার নারী-পুরষ, শিক্ষার্থী ও সাধারণ মানুষ মেলা ঘুরে দেখেন এবং সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড সম্পর্কে অবহিত হন।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *