Sharing is caring!

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসনের ৪৩ হাজার ৬’শ

পরিবারকে খাদ্য ও অর্থ সহায়তা

♦ স্টাফ রিপোর্টার 

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ৪৩ হাজার ৫৯৬ পরিবারকে করোনা ভাইরাস সংকটকালিন সময়ে খাদ্য ও অর্থ সহায়তা দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে ৩৭ হাজার ১’শ পরিবারকে খাদ্য সহায়তা এবং ৬ হাজার ৪৯৬ পরিবারকে নগদ অর্থ সহায়তা দেয়া হয়। রবিবার সকালে জেলা প্রশাসনের পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।
প্রেসনোটে জেলা প্রশাসন সুত্র জানায়-খাদ্য সহায়তা হিসেবে ৩৭১ মেট্রিক টন চাউল এবং অর্থ সহায়তা হিসেবে ১৬ লক্ষ ২৪ হাজার টাকা ইতোমধ্যেই জেলার সকল উপজেলা প্রশাসন ও পৌর মেয়রদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ৯ হাজার পরিবারকে ৯০ মেট্রিক টন চাউল ও ১ হাজার ৫০৪ পরিবারকে ৩ লক্ষ ৭৬ হাজার টাকা। শিবগঞ্জ উপজেলায় ৯ হাজার পরিবারকে ৯০ মেট্রিক টন চাউল ও ১ হাজার ৪৪০ পরিবারকে ৩ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা। গোমস্তাপুর উপজেলায় ৪ হাজার ৫০০ পরিবারকে ৪৫ মেট্রিক টন চাউল ও ৭৬৮ পরিবারকে ১ লক্ষ ৯২ হাজার টাকা। নাচোল উপজেলায় ৩ হাজার পরিবারকে ৩০ মেট্রিক টন চাউল ও ৩৮৪ পরিবারকে ৯৬ হাজার টাকা এবং ভোলাহাট উপজেলায় ৩ হাজার পরিবারকে ৩০ মেট্রিক টন চাউল ও ৩৮৪ পরিবারকে ৯৬ হাজার টাকা। চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভায় ৩ হাজার ২০০ পরিবারকে ৩২ মেট্রিক টন চাউল ও ৭২০ পরিবারকে ১ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা, শিবগঞ্জ পৌরসভায় ২ হাজার ৪০০ পরিবারকে ২৪ মেট্রিক টন চাউল ও ৪৩২ পরিবারকে ১ লক্ষ ৮ হাজার টাকা, রহনপুর পৌরসভায় ১ হাজার ৫০০ পরিবারকে ১৫ মেট্রিক টন চাউল ও ৪৩২ পরিবারকে ১ লক্ষ ৮ হাজার টাকা এবং নাচোল পৌরসভায় ১ হাজার ৫০০ পরিবারকে ১৫ মেট্রিক টন চাউল ও ৪৩২ পবিরবারকে ১ লক্ষ ৮ হাজার টাকা বিতরণের জন্য বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এসব বরাদ্দকৃত খাদ্য ও টাকা বিতরণ কাজ শুরু করেছে সকল উপজেলা ও পৌরসভা। প্রেসনোটে আরও জানানো হয়, জেলা প্রশাসনের কাছে বর্তমানে মজুদ আছে ১৭৭ মেট্রিক টন চাউল ও ৬ লক্ষ ৮১ হাজার টাকা।
জেলা প্রশাসন আরও জানায়, জেলায় ৬০০ পিস পিপিই সংশ্লিষ্টদের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে এবং মজুদ আছে ২১৬ পিস।
জেলায় কোভিড ১৯ (করোনা ভাইরাসে) এখন পর্যন্ত কেউ আক্রান্ত হয়নি জানিয়ে প্রেসনোটে বলা হয়, জেলায় ৬৯ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন এবং এ পর্যন্ত ৮৫৫ জন হোম কোয়ারেন্টাইন হতে সুস্থ হয়ে মুক্ত হয়েছেন। রবিবার দুপুর ১২ টা পর্যন্ত ১০ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *