Sharing is caring!

জলবায়ু অর্থায়নে অগ্রগতি ও স্বচ্ছতা নিশ্চিত

করার দাবীতে চাঁপাইনবাবগঞ্জে সনাকের সভা

♦ স্টাফ রিপোর্টার

তা নিশ্চিত করার দাবীতে আলোচনা সভা হয়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জে। সোমবার বিকেলে টিআইবি’র সচেতন নাগরিক কমিটি সনাক এর আয়োজনে শহরের সনাক কার্যালয়ে সভায় আলোচক ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা সমাজ সেবক মনিম উদ দৌলা চৌধুরী ও সেভ দ্যা নেচার এর চাঁপাইনবাবগঞ্জ শাখার প্রধান সমš^য়ক মো. রবিউল হাসান ডলার। আগামী ২-৪ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখে পোল্যান্ডের কাতোভিতসেতে অনুষ্ঠিতব্য কপ-২৮ সম্মেলন উপলক্ষে জলবায়ু অর্থায়নে দৃশ্যমান অগ্রগতি ও স্বচ্ছতা নিশ্চিত করার দাবীতে আলোচনা সভা সভাপতিত্ব করেন সনাকের সভাপতি এ্যাড. সাইফুল ইসলাম রেজা। স্বাসুশাসন বিষয়ক উপ-কমিটির আহবায়ক সাংবাদিক ন.স.ম.মাহবুবুর রহমান মিন্টু। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সনাক সহ-সভাপতি গোলাম ফারুক মিথুন, স্বজন সমন্বয়কারী মোঃ এনামুল হক, ব্র্যাক এর জেলা প্রতিনিধি মোঃ শাহনূর সুলতানসহ অন্যরা। বক্তারা টিআইবি’র দাবির সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সনাক সদস্য উম্মে সালমা হ্যাপি ও টিআইবি’র এরিয়া ম্যানেজার মোঃ শফিকুল ইসলাম। সনাক সদস্য ওয়ালিউল আজিম টিআইবি’র যেসব দাবীগুলো তুলে ধরেন, সেগুলো হলো,  প্যারিস চুক্তির আওতায় জলবায়ু অর্থায়নে উন্নত এবং উন্নয়নশীল উভয় শ্রেণীর দেশের জন্য আইনী বাধ্যতামূলক, একটি ‘‘স্বচ্ছতা কাঠামো” অবলম্বন করে সংশ্লিষ্ট সকল অংশীজনের শুদ্ধাচার ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে, দূষণকারী কর্তৃক ক্ষতিপূরণ প্রদান নীতি বিবেচনা করে ঋণ নয়, শুধু সরকারি অনুদান, যা উন্নয়ন সহায়তার ‘অতিরিক্ত’ এবং ‘নতুন’ প্রতিশ্রুতির স্বীকৃতি দিয়ে জলবায়ু অর্থায়নের সংজ্ঞায়ন করতে হবে, স্বল্পোন্নত দেশগুলোর স্বার্থ নিশ্চিতে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে প্যারিস জলবায়ু চুক্তি বাস্তবায়নের রুপরেখা চ‚ড়ান্ত করা, উন্নত দেশগুলো হতে প্রয়োজনীয় সম্পদ সরবরাহের জোর দাবি উত্থাপন করতে হবে, উন্নয়নশীল দেশগুলোর অভিযোজনকে অগ্রাধিকার দিয়ে চাহিদা মাফিক জলবায়ু তহবিল প্রদানে একটি সময়াবদ্ধ রোডম্যাপ প্রণয়ন এবং বাস্তবায়ন করতে হবে, ক্ষতিগ্রস্ত স্বল্পোন্নত দেশসমূহের পরিকল্পিত অভিযোজনের জন্য জিসিএফ ও অন্যান্য আন্তর্জাতিক তহবিল হতে প্রয়োজনীয় তহবিল অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যথাসময়ে, সহজে সরবরাহের জন্য বাংলাদেশ সহ ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোকে সমন্বিতভাবে দাবি উপস্থাপন করা এবং তা আাদায়ে দর কষাকষিতে দক্ষতা প্রদর্শন করতে হবে, স্বল্পোন্নত দেশে অভিযোজন বাবদ অর্থায়নের অতিরিক্ত হিসেবে ক্ষয়-ক্ষতি মোকাবেলায় বিশেষ তহবিল গঠন এবং তার জন্য দ্রুত অর্থায়ন নিশ্চিতে স্বল্পোন্নত দেশগুলোকে সোচ্চার হতে হবে, জলবায়ু-তাড়িত বাস্তুচ্যুতদের পুনর্বাসন, কল্যাণ এবং অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি নিশ্চিতে জিসিএফ এবং অভিযোজন তহবিল থেকে বিশেষ তহবিল বরাদ্দ নিশ্চিত করতে হবে এবং জিসিএফ এর ট্রাস্টি বোর্ডের কাঠামো পুনর্গঠনের মাধ্যমে একটি সমতা-ভিত্তিক প্রতিনিধিত্বমূলক এবং কার্যকর ট্রাস্টি বোর্ড গঠন এবং ক্ষতিগ্রস্ত দেশসমূহের অভিযোজন কার্যক্রমে অনুদানকে অগ্রাধিকার প্রদান করতে হবে। আলোচনা সভায় সনাক, স্বজন, ইয়েস ও ইয়েস ফ্রেন্ডস সদস্য, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, শিক্ষক, এনজিও প্রতিনিধি, টিআইবি কর্মকর্তাসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *