Sharing is caring!

জামায়াত নেতারা বিএনপির প্রতীকে নির্বাচন

করবে জানলে আমি ঐক্যফ্রন্টে

যোগ দিতাম না: ড. কামাল

নিউজ ডেস্ক: ধানের শীষ প্রতীকে নিষিদ্ধ ঘোষিত রাজনৈতিক দল জামায়াত প্রার্থীদের বিএনপি মনোনয়ন দেয়া হবে জানলে ঐক্যফ্রন্টের দায়িত্ব নিতেন না বলে দাবি করেছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষনেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন। বুধবার (২৬ ডিসেম্বর) ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ক্ষোভের সাথে তিনি এসব কথা বলেন। বৃহস্পতিবার (২৭ ডিসেম্বর) সাক্ষাৎকারটি প্রকাশিত হয়েছে।সাক্ষাৎকারে ড. কামাল বলেন, ‘বিএনপি আমাকে অন্ধকারে রেখে জামায়াতের সাথে গোপনে হাত মিলিয়ে দলটির প্রার্থীদের হাতে ধানের শীষ প্রতীক তুলে দিয়েছে। যদি জানতাম জামায়াত নেতারা বিএনপির প্রতীকে নির্বাচন করবেন, তাহলে আমি এতে যোগ দিতাম না। কিন্তু ভবিষ্যৎ সরকারে যদি জামায়াত নেতাদের কোনও ভূমিকা থাকে, তাহলে আমি তাদের সঙ্গে একদিনও থাকবো না।’

নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধন বাতিল হওয়া জামায়াতে ইসলামীর ২২ জন নেতার বিএনপি’র প্রতীকে মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়ে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি। কামাল হোসেন আরো বলেন, ‘দুঃখ নিয়েই বলতে চাই, বিএনপি যুদ্ধাপরাধের দায়ে নিষিদ্ধ জামায়াতের প্রার্থীদের হাতে ধানের শীষ তুলে দিয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের চেতনার সঙ্গে বেইমানি করেছে। জামায়াত নেতাদের মনোনয়ন দিয়ে বিএনপি রাজনৈতিক বোকামি করেছে। আমি লিখিত দিয়েছি যে, জামায়াতকে কোনও সমর্থন দেওয়া এবং ধর্ম, মৌলবাদ, চরমপন্থাকে সামনে আনা যাবে না।’

ভারতের সঙ্গে বিএনপি’র সম্পর্কের বিষয়ে ড. কামাল বলেন, ‘ভারতের কাছে বিএনপি তাদের অতীত অপকর্মের জন্য ক্ষমা চেয়েছে। তারা ভুল স্বীকার করেছে। খালেদা জিয়া যখন ভারত গেলেন, তখন তিনি তাদের এটা বলেছেন। এটা তাদের ভুল উপলব্ধির প্রক্রিয়ার অংশ, খালেদা জিয়া নিজেদের অবস্থান সংশোধন শুরু করেছেন।’

ক্ষমতায় গেলে প্রধানমন্ত্রী হবেন কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে ড. কামাল হোসেন জানান, ঐক্যফ্রন্ট ক্ষমতায় গেলে কোনো পদ ও বেতন ছাড়াই তিনি কাজ করতে চান। তিনি বলেন, ‘আমি, হ্যাঁ বা না বলবো না। কিন্তু গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় কোনও পদ ও বেতন ছাড়াই কাজ করতে আগ্রহী।’

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *