Sharing is caring!

CIMG3625দর্পণ ডেস্ক \ এবছর এ.এস.সি পরীক্ষায় জিপিএ ৫ প্রাপ্ত মোসাঃ ফাহমিদা আক্তার উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ করে ডাক্তার হতে চায়। দরিদ্র পরিবারের সন্তান ফাহমিদা ডাক্তার হয়ে দরিদ্র-অসহায় মানুষের সেবা করতে চায়। বাবা ফানিসুর রহমান একজন দিনমজুর ও মাতা মোসাঃ গোলাপী বেগম গৃহিনী। সে ফুলকুড়ি স্কুলের ছাত্রী এবং একই এলাকার বাসিন্দা। দিনমজুরী করে কোন রকমে পরিবারের খরচ চালাতেই হীমসিম খেতে হয় ফানিসুর রহমানকে। এস.এস.সি পর্যন্ত মেয়ের লেখাপড়ার খরচ জুগিয়েছেন অনেক কষ্টে। আগামীতে উচ্চ শিক্ষার জন্য ফাহমিদার শিক্ষার খরচ কিভাবে জোগান দেবেন সেই চিন্তাই দুশ্চিন্তাগ্রস্থ তার পিতা। হয়তো খরচ জোগাতে না পেরে বন্ধ হয়ে যেতে পারে ফাহমিদার লেখাপড়া। ফাহমিদার লেখাপড়ার খরচ জোগাতে সরকারি-বেসরকারি ও সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহবান জানিয়েছেন ফাহমিদার পিতা-মাতা।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *