Sharing is caring!

জেলার সাধারণ খেটে খাওয়া, গরীব, অসহায়, দুঃস্থ মানুষের একমাত্র সরকারি ¯^াস্থ্য সেবাকেন্দ্র চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে রোগীদের ¯^াস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছেন জেলার সচেতন মহল। ধনবান বা বিত্তবান পরিবারের লোকজন মোটা অংকের টাকা খরচ করে হলেও বিভিন্ন ক্লিনিকে গিয়ে চিকিৎসা নিতে পারেন। কিন্তু সাধারণ অসহায় মানুষরা সরকারি হাসপাতালে গিয়ে যদি ডাক্তারের অনুপস্থিতির কারণে চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হন, তাহলে ওইসব অসহায় মানুষরা কোথায় যাবে। কিভাবে সঠিক চিকিৎসা পাবে। চিকিৎসা না পেয়ে রোগের জ্বালা সহ্য করেই থাকতে হচ্ছে। হাসপাতালে ভালো সেবা দিতে হলে একটা টিম ওয়ার্কের প্রয়োজন। হাসপাতালের পরিবেশ অপরিছন্নও থাকে। আবার ক্লিনিকগুলোতে ওইসব ডাক্তারগণ ঠিকমতই চিকিৎসা দিয়ে থাকেন। কারণ, সেখানে রোগীদের কাছ থেকে মোটা অংকের ফিসহ নানাভাবে অর্থ নেয়া যায়। এদিকে, আবার বিভিন্ন ঔষধ কোম্পানীর প্রতিনিধিদেরও সময় দিতে হয় ডাক্তারদের। তা না হলে ওইসব ঔষধ কোম্পানীর ফ্রি ঔষধগুলো হাতছাড়া হয়ে যেতে পারে। সরকারি হাসপাতালের ডাক্তারদের মনোভাবখানা এমন যেন, সরকারি হাসপাতালে বেতন না নিয়ে ফ্রি চিকিৎসা সেবা দিয়ে থাকেন। কোনভাবে দিন পার হলেই হলো। আবার সরকারি হাসপাতালে ভাল চিকিৎসা হলে ক্লিনিকে রোগী কমে যাওয়ার ভয়ও আছে। যে কয়জন আছেন, তারা ঠিকমত দায়িত্ব পালন করছেন কি না? সে ব্যাপারে মাথাব্যাথাও নেই। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দাবি, হাসপাতালে প্রয়োজনমত চিকিৎসক বা কর্মচারী নেই। এই অযুহাতে চিকিৎসা দেয়া সম্ভব হচ্ছে না বলেই দায়িত্ব শেষ। তাই এসব অসহায় দুঃস্থ মানুষের চিকিৎসার কথা ভেবে হলেও চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে সঠিকভাবে চিকিৎসা সেবা দেয়ার বিষয়টির দিকে কঠোর দৃষ্টি দেবেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এমনটায় আশা করছেন ভুক্তভোগী চাঁপাইনবাবগঞ্জবাসী।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *